ঢাকা ০৯:৪১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

QR কোড স্ক্যান করলেই জানা যাবে আমের তথ্য

বাংলা টাইমস ডেস্ক
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৮:০৫:২১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪ ৬২ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ভারতের মালদহের আম ভুবনখ্যাত। জিআই ট্যাগ পেয়েছে এই জেলার লক্ষণভোগ, ফজলি ও হিমসাগর আম। এবার এই তিন প্রজাতির আমের গায়ে ব্যবহার করা হলো কিউআর কোড। আর তা স্ক্যান করলেই জানা যাবে আমের সব তথ্য। এছাড়া আমটি মালদহের কিনা তা সহজেই জানতে পারবেন ক্রেতারা।

মালদহের রতুয়ার আমচাষি দেবনারায়ণ ঘোষের ফল নিয়ে গেছেন দিল্লির আম মেলায়। আর সেখানে আমের গায়ে রয়েছে কিউআর কোড। তা স্ক্যান করলেই ক্রেতারা জানতে পারছেন আমের সব তথ্য। মালদহ জেলা উদ্যান পালন দপ্তরের উদ্যোগে চলতি বছর থেকেই এই কিউআর কোড (QR Code) ব্যবহার করা শুরু করা হয়েছে।

উদ্যান পালন দপ্তরের এক কর্মকর্তা বলেন, মালদহের আম বিখ্যাত। দেশের অনেক জায়গায় সাথে বিশ্বের নানা প্রান্তে সেই আম রপ্তানি করা হয়ে থাকে। আমরা প্রথমবার আমের গায়ে কিউআর কোড ব্যবহার করছি। যার সাহায্যে আমের সম্পর্কে সব তথ্য জানা যাবে।

তিনি বলেন, কোডটি স্ক্যান করলেই আমটি কোথায় চাষ হয়েছে। চাষে কী সার ব্যবহার করা হয়েছে, বিশ্বের যে-কোনও প্রান্তের মানুষ তা জানতে পারবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

QR কোড স্ক্যান করলেই জানা যাবে আমের তথ্য

সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৮:০৫:২১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪

ভারতের মালদহের আম ভুবনখ্যাত। জিআই ট্যাগ পেয়েছে এই জেলার লক্ষণভোগ, ফজলি ও হিমসাগর আম। এবার এই তিন প্রজাতির আমের গায়ে ব্যবহার করা হলো কিউআর কোড। আর তা স্ক্যান করলেই জানা যাবে আমের সব তথ্য। এছাড়া আমটি মালদহের কিনা তা সহজেই জানতে পারবেন ক্রেতারা।

মালদহের রতুয়ার আমচাষি দেবনারায়ণ ঘোষের ফল নিয়ে গেছেন দিল্লির আম মেলায়। আর সেখানে আমের গায়ে রয়েছে কিউআর কোড। তা স্ক্যান করলেই ক্রেতারা জানতে পারছেন আমের সব তথ্য। মালদহ জেলা উদ্যান পালন দপ্তরের উদ্যোগে চলতি বছর থেকেই এই কিউআর কোড (QR Code) ব্যবহার করা শুরু করা হয়েছে।

উদ্যান পালন দপ্তরের এক কর্মকর্তা বলেন, মালদহের আম বিখ্যাত। দেশের অনেক জায়গায় সাথে বিশ্বের নানা প্রান্তে সেই আম রপ্তানি করা হয়ে থাকে। আমরা প্রথমবার আমের গায়ে কিউআর কোড ব্যবহার করছি। যার সাহায্যে আমের সম্পর্কে সব তথ্য জানা যাবে।

তিনি বলেন, কোডটি স্ক্যান করলেই আমটি কোথায় চাষ হয়েছে। চাষে কী সার ব্যবহার করা হয়েছে, বিশ্বের যে-কোনও প্রান্তের মানুষ তা জানতে পারবেন।