ঢাকা ০৬:৪০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পিতৃত্বকালীন ছুটি কেন নয়: হাইকোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ০১:২৭:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুলাই ২০২৪ ১৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে পিতৃত্বকালীন ছুটি কেন নয়, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবার (৯ জুলাই) ৬ মাস বয়সী শিশু নুবাইদ বিন সাদীর দায়ের করা এ সংক্রান্ত এক রিটের শুনানি শেষে বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রুল জারি করেন।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিব, মন্ত্রিপরিষদ সচিব ও আইন মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। একই সাথে আগামী তিন মাসের মধ্যে নীতিমালা করার বিষয়ে অগ্রগতি প্রতিবেদন দিতে বলা হয়।

আইনজীবী ইশরাত হাসান আদালতে রিটকারি নিজেই শুনানি করেন। আর রাষ্ট্র পক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাস গুপ্ত।

এর অগে চলতি বছরের ৩ জুলাই আইনজীবী ইশরাত হাসান ও তার ছয় মাসের শিশু সন্তান হাইকোর্টে রিটটি করেন। রিট শুনানির সময় ৬ মাসের শিশুটি আদালতে উপস্থিত ছিল।

রিটে বলা হয়েছে, নবজাতকের যত্নে শুধু মায়ের ভূমিকাই নয়, বাবার ভূমিকাও আছে। বিশেষ করে ঢাকার মতো ব্যস্ত শহরে পরিবারের অন্য সদস্যদের সাহায্য নেয়ার সুযোগ সীমিত। এছাড়া, সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে শিশু জন্ম হওয়ার পর মায়ের সুস্থ হতে অনেক সময় লাগে। এ সময় নবজাতক ও মায়ের নিবিড় পরিচর্যার প্রয়োজন হয়। এক্ষেত্রে পিতৃত্বকালীন ছুটির সুযোগ না থাকায় যারা নতুন বাবা হন, তাদের স্ত্রী ও নবজাতকের দেখাশোনা করা অত্যন্ত কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ে। তাই পিতৃত্বকালীন ছুটি প্রয়োজন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

পিতৃত্বকালীন ছুটি কেন নয়: হাইকোর্ট

সংবাদ প্রকাশের সময় : ০১:২৭:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুলাই ২০২৪

সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে পিতৃত্বকালীন ছুটি কেন নয়, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবার (৯ জুলাই) ৬ মাস বয়সী শিশু নুবাইদ বিন সাদীর দায়ের করা এ সংক্রান্ত এক রিটের শুনানি শেষে বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রুল জারি করেন।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিব, মন্ত্রিপরিষদ সচিব ও আইন মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। একই সাথে আগামী তিন মাসের মধ্যে নীতিমালা করার বিষয়ে অগ্রগতি প্রতিবেদন দিতে বলা হয়।

আইনজীবী ইশরাত হাসান আদালতে রিটকারি নিজেই শুনানি করেন। আর রাষ্ট্র পক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাস গুপ্ত।

এর অগে চলতি বছরের ৩ জুলাই আইনজীবী ইশরাত হাসান ও তার ছয় মাসের শিশু সন্তান হাইকোর্টে রিটটি করেন। রিট শুনানির সময় ৬ মাসের শিশুটি আদালতে উপস্থিত ছিল।

রিটে বলা হয়েছে, নবজাতকের যত্নে শুধু মায়ের ভূমিকাই নয়, বাবার ভূমিকাও আছে। বিশেষ করে ঢাকার মতো ব্যস্ত শহরে পরিবারের অন্য সদস্যদের সাহায্য নেয়ার সুযোগ সীমিত। এছাড়া, সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে শিশু জন্ম হওয়ার পর মায়ের সুস্থ হতে অনেক সময় লাগে। এ সময় নবজাতক ও মায়ের নিবিড় পরিচর্যার প্রয়োজন হয়। এক্ষেত্রে পিতৃত্বকালীন ছুটির সুযোগ না থাকায় যারা নতুন বাবা হন, তাদের স্ত্রী ও নবজাতকের দেখাশোনা করা অত্যন্ত কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ে। তাই পিতৃত্বকালীন ছুটি প্রয়োজন।