ঢাকা ১২:২৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নবম শ্রেণির বইয়ে অন্তর্বাস বিক্রির ওয়েবসাইটের ঠিকানা!

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৯:৫৬:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪ ১০০ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নতুন শিক্ষাক্রমে পাঠ্যবইয়ের কনটেন্ট নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা এখনো শেষ হয়নি। এরমধ্যে নবম শ্রেণির জীবন ও জীবিকা বইয়ের একটি বিষয় নিয়ে সমালোচনা নতুন করে শুরু হয়েছে। এর কারণ, বইটিতে অন্তর্বাস বিক্রির ওয়েবসাইটের ঠিকানাযুক্ত একটি কিউআর কোড সংযুক্ত রয়েছে।

বইয়ের উদ্যোক্তা হিসেবে যাত্রা অংশটি রয়েছে ৩০ থেকে ৬০ পৃষ্ঠা পর্যন্ত। এরমধ্যে ৩৮ নম্বর পৃষ্ঠায় ‘ব্যবসার ব্র্যান্ডিং, মার্কেটিং বা বিপণন পরিকল্পনা’-সংক্রান্ত ৬ নম্বর ধাপে উদ্যোক্তা হিসেবে কীভাবে ব্যবসা শুরু করতে হয় তা উল্লেখ রয়েছে।

ওই পৃষ্ঠার ২.১ নম্বর চিত্রে বিভিন্ন মাধ্যমে পণ্যের বিজ্ঞাপনের নমুনার চিত্র তুলে ধরে সেখানে নিত্যদিন স্টোরের একটি ছবি দেয়া হয়েছে। একই সাথে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের আইকন দেয়া হয়েছে। তবে এরমধ্যে একটি কিউআর কোড সংযুক্ত করা হয়েছে। যে কোডটি স্ক্যান করলেই Trucss.com.br নামক ওয়েবসাইট সামনে আসছে। এটি পর্তুগিজ একটি নারীদের অন্তর্বাস বিক্রির ওয়েবসাইট। সেখানে নারীদের অন্তর্বাস পরে বিজ্ঞাপনের মডেল হতে দেখা যায়।

পরে সেই কিউআর কোড স্ক্যান করলে ওই ওয়েবসাইটটির ওয়েব ঠিকানা দেখানো হলেও সাইট এরর দেখাচ্ছে। তবে খোঁজ নিয়ে এই ওয়েবসাইট পর্তুগিজ নারীদের অন্তর্বাস বিক্রির ওয়েবসাইট বলে নিশ্চিত হওয়া যায়। অনলাইনে এই নামে বিজ্ঞাপনের শেষ নেই।

এর আগে, এ বছরে শিক্ষার্থীরা নতুন বই পাওয়ার পর থেকে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়। এরমধ্যে সপ্তম শ্রেণির ইতিহাস ও সামাজিক বিজ্ঞান বইয়ের ‘মানুষে মানুষে সাদৃশ্য ও ভিন্নতা’ অধ্যায়ের ‘শরীফার গল্প’ নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে ‘শরীফার গল্প’র বিষয়ে বিশেষজ্ঞ কমিটি করে দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সম্প্রতি বিশেষজ্ঞ কমিটির দেয়া প্রতিবেদন ও সুপারিশের ভিত্তিতে গল্পটি বই থেকে বাদ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রণালয়। এরমধ্যে জীবন ও জীবিকা বইয়ের কিউআর কোড নিয়ে নতুন করে সমালোচনা শুরু হলো।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

নবম শ্রেণির বইয়ে অন্তর্বাস বিক্রির ওয়েবসাইটের ঠিকানা!

সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৯:৫৬:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪

নতুন শিক্ষাক্রমে পাঠ্যবইয়ের কনটেন্ট নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা এখনো শেষ হয়নি। এরমধ্যে নবম শ্রেণির জীবন ও জীবিকা বইয়ের একটি বিষয় নিয়ে সমালোচনা নতুন করে শুরু হয়েছে। এর কারণ, বইটিতে অন্তর্বাস বিক্রির ওয়েবসাইটের ঠিকানাযুক্ত একটি কিউআর কোড সংযুক্ত রয়েছে।

বইয়ের উদ্যোক্তা হিসেবে যাত্রা অংশটি রয়েছে ৩০ থেকে ৬০ পৃষ্ঠা পর্যন্ত। এরমধ্যে ৩৮ নম্বর পৃষ্ঠায় ‘ব্যবসার ব্র্যান্ডিং, মার্কেটিং বা বিপণন পরিকল্পনা’-সংক্রান্ত ৬ নম্বর ধাপে উদ্যোক্তা হিসেবে কীভাবে ব্যবসা শুরু করতে হয় তা উল্লেখ রয়েছে।

ওই পৃষ্ঠার ২.১ নম্বর চিত্রে বিভিন্ন মাধ্যমে পণ্যের বিজ্ঞাপনের নমুনার চিত্র তুলে ধরে সেখানে নিত্যদিন স্টোরের একটি ছবি দেয়া হয়েছে। একই সাথে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের আইকন দেয়া হয়েছে। তবে এরমধ্যে একটি কিউআর কোড সংযুক্ত করা হয়েছে। যে কোডটি স্ক্যান করলেই Trucss.com.br নামক ওয়েবসাইট সামনে আসছে। এটি পর্তুগিজ একটি নারীদের অন্তর্বাস বিক্রির ওয়েবসাইট। সেখানে নারীদের অন্তর্বাস পরে বিজ্ঞাপনের মডেল হতে দেখা যায়।

পরে সেই কিউআর কোড স্ক্যান করলে ওই ওয়েবসাইটটির ওয়েব ঠিকানা দেখানো হলেও সাইট এরর দেখাচ্ছে। তবে খোঁজ নিয়ে এই ওয়েবসাইট পর্তুগিজ নারীদের অন্তর্বাস বিক্রির ওয়েবসাইট বলে নিশ্চিত হওয়া যায়। অনলাইনে এই নামে বিজ্ঞাপনের শেষ নেই।

এর আগে, এ বছরে শিক্ষার্থীরা নতুন বই পাওয়ার পর থেকে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়। এরমধ্যে সপ্তম শ্রেণির ইতিহাস ও সামাজিক বিজ্ঞান বইয়ের ‘মানুষে মানুষে সাদৃশ্য ও ভিন্নতা’ অধ্যায়ের ‘শরীফার গল্প’ নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে ‘শরীফার গল্প’র বিষয়ে বিশেষজ্ঞ কমিটি করে দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সম্প্রতি বিশেষজ্ঞ কমিটির দেয়া প্রতিবেদন ও সুপারিশের ভিত্তিতে গল্পটি বই থেকে বাদ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রণালয়। এরমধ্যে জীবন ও জীবিকা বইয়ের কিউআর কোড নিয়ে নতুন করে সমালোচনা শুরু হলো।