ঢাকা ০৩:৩১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তিস্তা নিয়ে ভারতের সাথে কাজে আপত্তি নেই চীনের

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ০২:১৮:৫৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই ২০২৪ ২১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ঢাকায় নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত ইয়াও ওয়েন বলেছেন, তিস্তা মহাপরিকল্পনা প্রকল্পে ভারতের সাথে কাজ করতে চীনের কোনও আপত্তি নেই। বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) ডি ক্যাব আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি বলেন, সরকারের যেকোনো সিদ্ধান্তকে আমরা সম্মান করবো। এই প্রকল্প নিয়ে প্রস্তাব দিয়েছিলাম আমরা, এখনো বাংলাদেশের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায়।

ইয়াও ওয়েন আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চীন সফরে এদেশের অবকাঠামো উন্নয়ন,বাণিজ্য সম্প্রসারণ, বিনিয়োগ বৃদ্ধি, কৃষি সহযোগিতা, ডিজিটাল ইকোনোমি, শিক্ষা, ফ্রি ট্রেড অ্যাগ্রিমেন্ট, গণমাধ্যমের সাথে সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা হবে। এছাড়া দু’দেশের জনগণের মধ্যে সংযোগ বৃদ্ধির বিষয়ে আলোচনা হবে। রোহিঙ্গা সংকট আলোচনায় বিশেষ গুরুত্ব পাবে।

তিস্তা মহাপরিকল্পনা নিয়ে চীনের রাষ্ট্রদূত বলেন, এই নদী বাংলাদেশের নদী। অতএব তিস্তা প্রকল্প নিয়ে বাংলাদেশকেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। তিস্তা নিয়ে আমরা প্রস্তাব দিয়েছিলাম। আমরা এখনো বাংলাদেশের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছি। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে তিস্তা নিয়ে সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের প্রস্তাব দেয়া হয়েছিলো।

চীনা রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশকে উদীয়মান অর্থনীতির দেশ হিসেবে দেখে চীন। এই ধারাবাহিকতায় উন্নয়ন চলতে থাকলে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় হবে চার হাজার ডলার। আন্তর্জাতিক নানা ইস্যুতে বাংলাদেশ ও চীনের দৃষ্টিভঙ্গি একই।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

তিস্তা নিয়ে ভারতের সাথে কাজে আপত্তি নেই চীনের

সংবাদ প্রকাশের সময় : ০২:১৮:৫৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই ২০২৪

ঢাকায় নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত ইয়াও ওয়েন বলেছেন, তিস্তা মহাপরিকল্পনা প্রকল্পে ভারতের সাথে কাজ করতে চীনের কোনও আপত্তি নেই। বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) ডি ক্যাব আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি বলেন, সরকারের যেকোনো সিদ্ধান্তকে আমরা সম্মান করবো। এই প্রকল্প নিয়ে প্রস্তাব দিয়েছিলাম আমরা, এখনো বাংলাদেশের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায়।

ইয়াও ওয়েন আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চীন সফরে এদেশের অবকাঠামো উন্নয়ন,বাণিজ্য সম্প্রসারণ, বিনিয়োগ বৃদ্ধি, কৃষি সহযোগিতা, ডিজিটাল ইকোনোমি, শিক্ষা, ফ্রি ট্রেড অ্যাগ্রিমেন্ট, গণমাধ্যমের সাথে সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা হবে। এছাড়া দু’দেশের জনগণের মধ্যে সংযোগ বৃদ্ধির বিষয়ে আলোচনা হবে। রোহিঙ্গা সংকট আলোচনায় বিশেষ গুরুত্ব পাবে।

তিস্তা মহাপরিকল্পনা নিয়ে চীনের রাষ্ট্রদূত বলেন, এই নদী বাংলাদেশের নদী। অতএব তিস্তা প্রকল্প নিয়ে বাংলাদেশকেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। তিস্তা নিয়ে আমরা প্রস্তাব দিয়েছিলাম। আমরা এখনো বাংলাদেশের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছি। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে তিস্তা নিয়ে সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের প্রস্তাব দেয়া হয়েছিলো।

চীনা রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশকে উদীয়মান অর্থনীতির দেশ হিসেবে দেখে চীন। এই ধারাবাহিকতায় উন্নয়ন চলতে থাকলে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় হবে চার হাজার ডলার। আন্তর্জাতিক নানা ইস্যুতে বাংলাদেশ ও চীনের দৃষ্টিভঙ্গি একই।