ঢাকা ০৮:২৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঢাকায় ৮ মাত্রার ভূমিকম্পে ২০ শতাংশ ভবন ধ্বংসে পড়তে পারে

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৪:৩৮:২৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪ ৩৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মহিববুর রহমান বলেছেন, ঢাকায় সর্বোচ্চ ৮ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প হতে পারে। বুধবার (১২ জুন) বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম আয়োজিত এক সংলাপে’ অংশ নিয়ে তিনি এই শঙ্কার কথা জানান।

এ সময় প্রতিমন্ত্রী বলেন, রাজধানী ঢাকায় ৮ মাত্রার ভূমিকম্প হলে ২০ শতাংশ বিল্ডিং ধ্বংস হতে পারে। যা আন্তর্জাতিক গবেষণার ফলাফল।

তিনি আরও বলেন, এ নিয়ে ভয়ের কারণ নেই। এমন পরিস্থিতি বহু দেশে রয়েছে, যেমন তুরস্কে ভূমিকম্প হয়। কিন্তু তারা দুর্যোগ সহনীয় অবকাঠামো ও সমাজ ব্যবস্থা গড়ে তুলেছে। যে কারণে সমস্যা এলে সমাধান করার সক্ষমতা তারা তৈরি করেছেন।’

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী বলেন, যদি ভূমিকম্প হয়, সেজন্য শহুর অঞ্চলে ব্যাপকভাবে স্বেচ্ছাসেবী তৈরি করতে কাজ করছি। ভবনগুলো যদি ধসে যায়, তাহলে মানুষকে উদ্ধারে আমরা ব্যাপকভাবে পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি।’

তিনি বলেন, আমরা পরিকল্পিতভাবে ঘূর্ণিঝড় রেমালঅ মোকাবিলা করেছি। সাত হাজার কোটি টাকার বেশি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক করে এ তথ্য পেয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বজ্রপাত মোকাবিলায় ১৩শ’ কোটি টাকার একটি প্রজেক্ট আসছে। আগামী মাসে বজ্রপাত মোকাবিলায় আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার সম্পর্কে জানতে সচিবসহ তিনি ফ্রান্স সফরে যাবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

ঢাকায় ৮ মাত্রার ভূমিকম্পে ২০ শতাংশ ভবন ধ্বংসে পড়তে পারে

সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৪:৩৮:২৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মহিববুর রহমান বলেছেন, ঢাকায় সর্বোচ্চ ৮ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প হতে পারে। বুধবার (১২ জুন) বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম আয়োজিত এক সংলাপে’ অংশ নিয়ে তিনি এই শঙ্কার কথা জানান।

এ সময় প্রতিমন্ত্রী বলেন, রাজধানী ঢাকায় ৮ মাত্রার ভূমিকম্প হলে ২০ শতাংশ বিল্ডিং ধ্বংস হতে পারে। যা আন্তর্জাতিক গবেষণার ফলাফল।

তিনি আরও বলেন, এ নিয়ে ভয়ের কারণ নেই। এমন পরিস্থিতি বহু দেশে রয়েছে, যেমন তুরস্কে ভূমিকম্প হয়। কিন্তু তারা দুর্যোগ সহনীয় অবকাঠামো ও সমাজ ব্যবস্থা গড়ে তুলেছে। যে কারণে সমস্যা এলে সমাধান করার সক্ষমতা তারা তৈরি করেছেন।’

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী বলেন, যদি ভূমিকম্প হয়, সেজন্য শহুর অঞ্চলে ব্যাপকভাবে স্বেচ্ছাসেবী তৈরি করতে কাজ করছি। ভবনগুলো যদি ধসে যায়, তাহলে মানুষকে উদ্ধারে আমরা ব্যাপকভাবে পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি।’

তিনি বলেন, আমরা পরিকল্পিতভাবে ঘূর্ণিঝড় রেমালঅ মোকাবিলা করেছি। সাত হাজার কোটি টাকার বেশি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক করে এ তথ্য পেয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বজ্রপাত মোকাবিলায় ১৩শ’ কোটি টাকার একটি প্রজেক্ট আসছে। আগামী মাসে বজ্রপাত মোকাবিলায় আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার সম্পর্কে জানতে সচিবসহ তিনি ফ্রান্স সফরে যাবেন।