ঢাকা ০৭:২৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এনবিআরের মতিউর ও তার পরিবারের সম্পত্তি ক্রোকের আদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ০১:৫১:৪৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই ২০২৪ ৩২ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ছাগলকাণ্ডে আলোচিত এনবিআরের সাবেক কর্মকর্তা মতিউর রহমান ও তার পরিবারের সম্পত্তি ক্রোকের আদেশ দিয়েছেন আদালত। দুদকের আবেদনের প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ মোহাম্মদ জগলুল হোসেন এই আদেশ দেন।

কোরবানীর ঈদের সময় এনবিআরের সদস্য মতিউর রহমানের দ্বিতীয় স্ত্রীর ছেলে মুশফিকুর রহমান ১৫ লাখ টাকার ছাগল কিনে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক আলোচনায় আসেন। ছেলের ছাগলকান্ডের সূত্র ধরেই মতিউরের সম্পদের বিষয়টি আলোচনায় আসে।

এরপর বেরিয়ে আসে মতিউর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের নামে থাকা সম্পদের তথ্য। এই পর্যন্ত তার দুই স্ত্রী, সন্তান, ভাইবোনসহ আত্মীয় স্বজনদের নামে ৬ জেলায় জমি, ফ্ল্যাট, শিল্পপ্রতিষ্ঠান, রিসোর্টসহ নানা সম্পত্তির খোঁজ পাওয়া গেছে। এর বাইরে পুঁজিবাজারেও বিনিয়োগ রয়েছে মতিউরের।

এনবিআরের এই কর্মকর্তা ও তার স্বজনদের নামে থাকা এখন পর্যন্ত ৬৫ বিঘা জমি, ৮টি ফ্ল্যাট, দুটি রিসোর্ট ও পিকনিক স্পট এবং দুটি শিল্পপ্রতিষ্ঠানের তথ্য পাওয়া গেছে। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি সম্পদ প্রথম স্ত্রী লায়লা কানিজের নামে। তার নামে প্রায় ২৮ বিঘা জমি ও ৫টি ফ্ল্যাট। এরমধ্যে ঢাকার মিরপুরে একটি ভবনে ৪টি ফ্ল্যাট। শিক্ষকতা ছেড়ে দেওয়া লায়লা কানিজ বর্তমানে নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান। এছাড়া তিনি জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণবিষয়ক সম্পাদক।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

এনবিআরের মতিউর ও তার পরিবারের সম্পত্তি ক্রোকের আদেশ

সংবাদ প্রকাশের সময় : ০১:৫১:৪৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই ২০২৪

ছাগলকাণ্ডে আলোচিত এনবিআরের সাবেক কর্মকর্তা মতিউর রহমান ও তার পরিবারের সম্পত্তি ক্রোকের আদেশ দিয়েছেন আদালত। দুদকের আবেদনের প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ মোহাম্মদ জগলুল হোসেন এই আদেশ দেন।

কোরবানীর ঈদের সময় এনবিআরের সদস্য মতিউর রহমানের দ্বিতীয় স্ত্রীর ছেলে মুশফিকুর রহমান ১৫ লাখ টাকার ছাগল কিনে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক আলোচনায় আসেন। ছেলের ছাগলকান্ডের সূত্র ধরেই মতিউরের সম্পদের বিষয়টি আলোচনায় আসে।

এরপর বেরিয়ে আসে মতিউর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের নামে থাকা সম্পদের তথ্য। এই পর্যন্ত তার দুই স্ত্রী, সন্তান, ভাইবোনসহ আত্মীয় স্বজনদের নামে ৬ জেলায় জমি, ফ্ল্যাট, শিল্পপ্রতিষ্ঠান, রিসোর্টসহ নানা সম্পত্তির খোঁজ পাওয়া গেছে। এর বাইরে পুঁজিবাজারেও বিনিয়োগ রয়েছে মতিউরের।

এনবিআরের এই কর্মকর্তা ও তার স্বজনদের নামে থাকা এখন পর্যন্ত ৬৫ বিঘা জমি, ৮টি ফ্ল্যাট, দুটি রিসোর্ট ও পিকনিক স্পট এবং দুটি শিল্পপ্রতিষ্ঠানের তথ্য পাওয়া গেছে। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি সম্পদ প্রথম স্ত্রী লায়লা কানিজের নামে। তার নামে প্রায় ২৮ বিঘা জমি ও ৫টি ফ্ল্যাট। এরমধ্যে ঢাকার মিরপুরে একটি ভবনে ৪টি ফ্ল্যাট। শিক্ষকতা ছেড়ে দেওয়া লায়লা কানিজ বর্তমানে নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান। এছাড়া তিনি জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণবিষয়ক সম্পাদক।