ঢাকা ০৩:৫৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হত্যার পর মরদেহ যমুনায়,৩ আসামির যাবজ্জীবন

মাসুদ রানা, পাবনা
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৮:০০:১৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪ ৪৩ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

পাবনায় আব্দুল গাফফার মাছুম নামের এক কলেজছাত্রকে হত্যার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় তিন আসামির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সাথে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদণ্ড প্রদান করেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুনন) বেলা ১২টার দিকে পাবনার বিশেষ জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আহসান তারেক এই রায় প্রদান করেন।

দন্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলো- মো. আজিম (৩৫), মো. শহিদুল (২৮) এবং ছাবেদ আলী (৩০)। আসামিরা রায়ের সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন পরে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, নিহত আব্দুল গাফফার মাছুম সুজানগরের দুলাই ডা. জহরুল কামাল কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিলেন। ২০১৫ সালের ১৯ আগস্ট কলেজে ক্লাস চলাকালীন মোটরসাইকেল কেনা-বেচার কথা বলে কৌশলে অপহরণ করেন চাচাতো দুলাভাই মো. আজিম। এরপর দিন মাছুমের ফোনে কল করা হলে অজ্ঞাত পরিচয়ে জানান মাছুমকে অপহরণ করা হয়েছে।

মুক্তিপণ হিসেবে ২০ লাখ টাকা দাবি করেন। পরে দুলাভাই মো. আজিমকে সন্দেহ করে তার নাম উল্লেখ্য করে অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়। পরে আজিমকে জিজ্ঞাসাবাদে মাছুমকে অপহরণের পর মুক্তিপণ না পেয়ে হত্যা করে মরদেহ যমুনা নদীতে ফেলে দেয়ার কথা স্বীকার করে।

এ ঘটনা তদন্ত শেষে ২০১৬ সালের ৩ নভেম্বর আজিমসহ আরও তিন জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ। পরে রমজান নামের এক আসামির মৃত্যুর পরে তিনজনের বিচার শেষে রায় ঘোষণা করা হলো।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

হত্যার পর মরদেহ যমুনায়,৩ আসামির যাবজ্জীবন

সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৮:০০:১৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪

পাবনায় আব্দুল গাফফার মাছুম নামের এক কলেজছাত্রকে হত্যার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় তিন আসামির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সাথে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদণ্ড প্রদান করেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুনন) বেলা ১২টার দিকে পাবনার বিশেষ জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আহসান তারেক এই রায় প্রদান করেন।

দন্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলো- মো. আজিম (৩৫), মো. শহিদুল (২৮) এবং ছাবেদ আলী (৩০)। আসামিরা রায়ের সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন পরে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, নিহত আব্দুল গাফফার মাছুম সুজানগরের দুলাই ডা. জহরুল কামাল কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিলেন। ২০১৫ সালের ১৯ আগস্ট কলেজে ক্লাস চলাকালীন মোটরসাইকেল কেনা-বেচার কথা বলে কৌশলে অপহরণ করেন চাচাতো দুলাভাই মো. আজিম। এরপর দিন মাছুমের ফোনে কল করা হলে অজ্ঞাত পরিচয়ে জানান মাছুমকে অপহরণ করা হয়েছে।

মুক্তিপণ হিসেবে ২০ লাখ টাকা দাবি করেন। পরে দুলাভাই মো. আজিমকে সন্দেহ করে তার নাম উল্লেখ্য করে অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়। পরে আজিমকে জিজ্ঞাসাবাদে মাছুমকে অপহরণের পর মুক্তিপণ না পেয়ে হত্যা করে মরদেহ যমুনা নদীতে ফেলে দেয়ার কথা স্বীকার করে।

এ ঘটনা তদন্ত শেষে ২০১৬ সালের ৩ নভেম্বর আজিমসহ আরও তিন জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ। পরে রমজান নামের এক আসামির মৃত্যুর পরে তিনজনের বিচার শেষে রায় ঘোষণা করা হলো।