ঢাকা ০৬:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিএনপি নেতার সংর্বধনা অনুষ্ঠানে দু’গ্রুপের ধাওয়ায় পণ্ড

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ১১:২৮:৩৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪ ২৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

রাজশাহীর তানোরে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা মেজর জেনারেল শরিফ উদ্দিনকে সংর্বধনা দেওয়ার অনুষ্ঠানে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে পন্ড করে দিয়েছে তানোর উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক তানোর ও পৌরসভার সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিজান গ্রুপ। সোমবার (২৪ জুন) বিকেলে ঘটনাটি ঘটেছে তানোর পৌর এলাকার গোকুল গ্রামে।

এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনার পাশাপাশি সংর্বধনা অনুষ্ঠানের মঞ্চ ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটে। এতে সংর্বধনা অনুষ্ঠানের স্থান তানোর পৌর এলাকার গোকুল গ্রামসহ আশপাশ আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। এসময় ভিতস্থ হয়ে পড়ে সাধারণ মানুষসহ বিএনপি ও অংগ সংগঠনের নেতা-কর্মিরা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

প্রত্যক্ষদর্শি ও দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সাবেক মন্ত্রী ব্যারিষ্টার আমিনুল হকের ছোট ভাই মেজর জেনারেল শরিফ উদ্দিন স¤প্রতি বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা নির্বাচিত হওয়ায় তানোর উপজেলা কৃষকদল ও তানোর পৌর কৃষকদলের যৌথ উদ্যোগে তানোর পৌর এলাকার গোকুল গ্রামে সংর্বধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

তবে, উক্ত সংর্বধনা অনুষ্ঠানে মিজানুর রহমান মিজানের পক্ষের নেতা কর্মিদেরকে ডাকা হয়নি। এমন খবরে মিজান গ্রæপের নেতা-কর্মি ও সমর্থকরা সংর্বধনা অনুষ্ঠানে গিয়ে হই হুল্লোড় শুরু করে এবং এক পর্যায়ে লাঠি নিয়ে দু’গ্রæপের মধ্যে মারামারি ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনার পাশাপাশি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের মঞ্চ ভাঙচুর করা হয়। এসময় খবর পেয়ে তানোর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

তানোর উপজেলা কৃষকদলের সদস্য সচিব বলেন, কৃষকদলের পক্ষ থেকে সংর্বধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিলো। কিন্তু তানোর পৌরসভার সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিজান গ্রæপের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা লাঠি সোটা নিয়ে হামরা চালিয়ে মঞ্চ ভাঙচুর ও ব্যানার ছিড়ে ফেলে এবং ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। ফলে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান পন্ড হয়ে যায় বলে জানান তিনি।

এ ব্যাপারে তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুর রহিম বলেন, দু’পক্ষ মুখোমুখি অবস্থান নিয়েছেন এমন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ উভয়পক্ষকে সরিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

তিনি আরও বলেন, এঘটনায় কেউ কোন অভিযোগ করেননি। তবে, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান ওসি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

বিএনপি নেতার সংর্বধনা অনুষ্ঠানে দু’গ্রুপের ধাওয়ায় পণ্ড

সংবাদ প্রকাশের সময় : ১১:২৮:৩৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪

রাজশাহীর তানোরে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা মেজর জেনারেল শরিফ উদ্দিনকে সংর্বধনা দেওয়ার অনুষ্ঠানে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে পন্ড করে দিয়েছে তানোর উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক তানোর ও পৌরসভার সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিজান গ্রুপ। সোমবার (২৪ জুন) বিকেলে ঘটনাটি ঘটেছে তানোর পৌর এলাকার গোকুল গ্রামে।

এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনার পাশাপাশি সংর্বধনা অনুষ্ঠানের মঞ্চ ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটে। এতে সংর্বধনা অনুষ্ঠানের স্থান তানোর পৌর এলাকার গোকুল গ্রামসহ আশপাশ আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। এসময় ভিতস্থ হয়ে পড়ে সাধারণ মানুষসহ বিএনপি ও অংগ সংগঠনের নেতা-কর্মিরা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

প্রত্যক্ষদর্শি ও দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সাবেক মন্ত্রী ব্যারিষ্টার আমিনুল হকের ছোট ভাই মেজর জেনারেল শরিফ উদ্দিন স¤প্রতি বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা নির্বাচিত হওয়ায় তানোর উপজেলা কৃষকদল ও তানোর পৌর কৃষকদলের যৌথ উদ্যোগে তানোর পৌর এলাকার গোকুল গ্রামে সংর্বধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

তবে, উক্ত সংর্বধনা অনুষ্ঠানে মিজানুর রহমান মিজানের পক্ষের নেতা কর্মিদেরকে ডাকা হয়নি। এমন খবরে মিজান গ্রæপের নেতা-কর্মি ও সমর্থকরা সংর্বধনা অনুষ্ঠানে গিয়ে হই হুল্লোড় শুরু করে এবং এক পর্যায়ে লাঠি নিয়ে দু’গ্রæপের মধ্যে মারামারি ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনার পাশাপাশি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের মঞ্চ ভাঙচুর করা হয়। এসময় খবর পেয়ে তানোর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

তানোর উপজেলা কৃষকদলের সদস্য সচিব বলেন, কৃষকদলের পক্ষ থেকে সংর্বধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিলো। কিন্তু তানোর পৌরসভার সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিজান গ্রæপের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা লাঠি সোটা নিয়ে হামরা চালিয়ে মঞ্চ ভাঙচুর ও ব্যানার ছিড়ে ফেলে এবং ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। ফলে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান পন্ড হয়ে যায় বলে জানান তিনি।

এ ব্যাপারে তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুর রহিম বলেন, দু’পক্ষ মুখোমুখি অবস্থান নিয়েছেন এমন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ উভয়পক্ষকে সরিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

তিনি আরও বলেন, এঘটনায় কেউ কোন অভিযোগ করেননি। তবে, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান ওসি।