ঢাকা ০৬:৪৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পরকীয়ার জেরে স্বামীকে হত্যা, স্ত্রীর যাবজ্জীবন

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ১২:২১:০৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪ ৩৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় পরকীয়ার জেরে স্বামীকে হত্যার ঘটনায় এক নারীকে যাবজ্জীবন ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে ৬মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। রোববার (২৩ জুন) বিকেলে সিরাজগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ২য় আদালতের বিচারক আবুল বাশার মিঞা এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত ময়না খাতুন উল্লাপাড়া উপজেলার চড়ুইমুরি গ্রামের মজদার আলীর মেয়ে। রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেন আদালতের অতিরিক্ত পিপি জেবুন্নেছা (জেবা রহমান) ।

মামলার বিবরণে প্রকাশ, ২০১২ সালে ময়না খাতুনের সাথে শাহজাদপুর উপজেলার চক হরিপুর গ্রামের জহর আলীর ছেলে বাবু সরকারের বিয়ে হয়। বিয়ের পূর্বেই ভদ্রকোল চরপাড়া গ্রামের আহম্মদ আলীর সাথে ময়মা খাতুনের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এর ফলে ময়না শ্বশুরবাড়ি না থেকে বাবার বাড়িতে থাকতেই পছন্দ করতো। একপর্যায়ে ওই বছরের সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম দিকে ময়না খাতুন স্বামীর বাড়ি থেকে বাবার বাড়িতে বেড়াতে আসে। পরবর্তীতে ২১ সেপ্টেম্বর বাবু সরকার তার স্ত্রী ময়নাকে নিতে আসেন। ওইদিন দুপুরে বাবু সরকারকে শ্বাসরোধে হত্যা করে স্ত্রী ময়না আত্মহত্যা বলে প্রচার করে। এরপর পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা জহর আলী বাদী হয়ে ময়না খাতুন ও তার পরকীয়া প্রেমিক আহম্মদ আলীসহ সাতজনের নাম উল্লেখ করে উল্লাপাড়া মডেল থানার একটি হত্যা মামলা করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ ময়না খাতুন ও পরকীয়া প্রেমিক আহম্মদ আলীকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। দীর্ঘ সাড়ে ১১ বছর পর এ মামলার কার্যক্রম শেষে রোববার ময়না খাতুনকে যাবজ্জীবন দণ্ড প্রদান করেন আদালত। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় পরকীয়া প্রেমিক আহম্মদ আলীকে বেকসুর খালাস প্রদান করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

পরকীয়ার জেরে স্বামীকে হত্যা, স্ত্রীর যাবজ্জীবন

সংবাদ প্রকাশের সময় : ১২:২১:০৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় পরকীয়ার জেরে স্বামীকে হত্যার ঘটনায় এক নারীকে যাবজ্জীবন ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে ৬মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। রোববার (২৩ জুন) বিকেলে সিরাজগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ২য় আদালতের বিচারক আবুল বাশার মিঞা এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত ময়না খাতুন উল্লাপাড়া উপজেলার চড়ুইমুরি গ্রামের মজদার আলীর মেয়ে। রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেন আদালতের অতিরিক্ত পিপি জেবুন্নেছা (জেবা রহমান) ।

মামলার বিবরণে প্রকাশ, ২০১২ সালে ময়না খাতুনের সাথে শাহজাদপুর উপজেলার চক হরিপুর গ্রামের জহর আলীর ছেলে বাবু সরকারের বিয়ে হয়। বিয়ের পূর্বেই ভদ্রকোল চরপাড়া গ্রামের আহম্মদ আলীর সাথে ময়মা খাতুনের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এর ফলে ময়না শ্বশুরবাড়ি না থেকে বাবার বাড়িতে থাকতেই পছন্দ করতো। একপর্যায়ে ওই বছরের সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম দিকে ময়না খাতুন স্বামীর বাড়ি থেকে বাবার বাড়িতে বেড়াতে আসে। পরবর্তীতে ২১ সেপ্টেম্বর বাবু সরকার তার স্ত্রী ময়নাকে নিতে আসেন। ওইদিন দুপুরে বাবু সরকারকে শ্বাসরোধে হত্যা করে স্ত্রী ময়না আত্মহত্যা বলে প্রচার করে। এরপর পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা জহর আলী বাদী হয়ে ময়না খাতুন ও তার পরকীয়া প্রেমিক আহম্মদ আলীসহ সাতজনের নাম উল্লেখ করে উল্লাপাড়া মডেল থানার একটি হত্যা মামলা করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ ময়না খাতুন ও পরকীয়া প্রেমিক আহম্মদ আলীকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। দীর্ঘ সাড়ে ১১ বছর পর এ মামলার কার্যক্রম শেষে রোববার ময়না খাতুনকে যাবজ্জীবন দণ্ড প্রদান করেন আদালত। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় পরকীয়া প্রেমিক আহম্মদ আলীকে বেকসুর খালাস প্রদান করা হয়।