ঢাকা ০৭:৩৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নিখোঁজ শিশুর মরদেহ মিলল সেফটিক ট্যাংকে

নরসিংদী প্রতিনিধি
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ১১:৫১:৩৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪ ৩০ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নরসিংদীর পলাশে নিখোঁজের চারদিন পর সাড়ে ৩ বছরের এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত ওই শিশুটির নাম-মাইশা আক্তার।

মঙ্গলবার (২৫ জুন) সকালে উপজেলার জয়নগর গ্রামের নিজ বাড়ির সেফটিক ট্যাংক থেকে ওই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করেছে র‍্যাব।

নিহত মাইশা আক্তার জয়নগর গ্রামের মেহেদী হাসানের মেয়ে। সে গত শুক্রবার থেকে নিখোঁজ ছিলো। এ ঘটনায় পলাশ থানায় জিডি করা হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আটককৃতরা হলো- জালাল শেখ (৪৯), তার স্ত্রী মাহফুজা শেখ ও ছেলে বিল্লাল শেখ। তারা সবাই মেহেদী হাসানের বাড়ির ভাড়াটিয়া।

পুলিশ জানায়, উপজেলার জয়নগর গ্রামের শিলবাড়ির মোড়ের মেহেদী হাসানের মেয়ে মাইশা শুক্রবার বিকেল থেকে নিখোঁজ ছিলো। পরে তাকে খুঁজে না পেয়ে রাতে পলাশ থানায় জিডি করে মাইশার বাবা।

ঘটনার চারদিন পর মঙ্গলবার (২৫ জুন) ভোরে মেহেদী হাসানের ভাড়াটিয়া জামাল শেখ, স্ত্রী মাহফুজা শেখ ও ছেলে বিল্লাল শেখকে আটক করে র‍্যাব। পরে তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে নিজ বাড়ির সেফটি ট্যাংক থেকে সকাল ৮টার দিকে মাইশার মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরে মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে কি কারণে মাইশাকে হত্যা করেছে সে বিষয়ে তাৎক্ষণিক কিছু জানাতে পারেনি পুলিশ।

পলাশ থানার ওসি (তদন্ত) মো: জসিম উদ্দিন বলেন, এ ঘটনায় মঙ্গলবার (২৫ জুন) ভোরে ডাংগা থেকে তিনজনকে আটক করেছে র‍্যাব। তাদের পলাশ থানায় হস্তান্তর করবে র‍্যাব। শিশুকে কি কারণে হত্যা করা হয়েছে তা আটকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ ও তদন্তের পর বিস্তারিত জানাতে পারবো।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

নিখোঁজ শিশুর মরদেহ মিলল সেফটিক ট্যাংকে

সংবাদ প্রকাশের সময় : ১১:৫১:৩৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪

নরসিংদীর পলাশে নিখোঁজের চারদিন পর সাড়ে ৩ বছরের এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত ওই শিশুটির নাম-মাইশা আক্তার।

মঙ্গলবার (২৫ জুন) সকালে উপজেলার জয়নগর গ্রামের নিজ বাড়ির সেফটিক ট্যাংক থেকে ওই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করেছে র‍্যাব।

নিহত মাইশা আক্তার জয়নগর গ্রামের মেহেদী হাসানের মেয়ে। সে গত শুক্রবার থেকে নিখোঁজ ছিলো। এ ঘটনায় পলাশ থানায় জিডি করা হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আটককৃতরা হলো- জালাল শেখ (৪৯), তার স্ত্রী মাহফুজা শেখ ও ছেলে বিল্লাল শেখ। তারা সবাই মেহেদী হাসানের বাড়ির ভাড়াটিয়া।

পুলিশ জানায়, উপজেলার জয়নগর গ্রামের শিলবাড়ির মোড়ের মেহেদী হাসানের মেয়ে মাইশা শুক্রবার বিকেল থেকে নিখোঁজ ছিলো। পরে তাকে খুঁজে না পেয়ে রাতে পলাশ থানায় জিডি করে মাইশার বাবা।

ঘটনার চারদিন পর মঙ্গলবার (২৫ জুন) ভোরে মেহেদী হাসানের ভাড়াটিয়া জামাল শেখ, স্ত্রী মাহফুজা শেখ ও ছেলে বিল্লাল শেখকে আটক করে র‍্যাব। পরে তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে নিজ বাড়ির সেফটি ট্যাংক থেকে সকাল ৮টার দিকে মাইশার মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরে মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে কি কারণে মাইশাকে হত্যা করেছে সে বিষয়ে তাৎক্ষণিক কিছু জানাতে পারেনি পুলিশ।

পলাশ থানার ওসি (তদন্ত) মো: জসিম উদ্দিন বলেন, এ ঘটনায় মঙ্গলবার (২৫ জুন) ভোরে ডাংগা থেকে তিনজনকে আটক করেছে র‍্যাব। তাদের পলাশ থানায় হস্তান্তর করবে র‍্যাব। শিশুকে কি কারণে হত্যা করা হয়েছে তা আটকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ ও তদন্তের পর বিস্তারিত জানাতে পারবো।