ঢাকা ০৯:১৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঘোড়ার মাংস খেয়ে এলাকা ছাড়া মানুষ

মাসুদ রানা, পাবনা
  • আপডেট সময় : ০৫:৫৫:৫৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪ ২৪ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মাংস খাবেন বলে শখ করে ঘোড়া কিনেছিরেন আনান মহিউদ্দিন চৌধুরী। এরপর জবাই করে রান্নাও করা হয়। আয়োজন করে সেই মাংস খাওয়ার ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। আর তাতেই বাধে বিপত্তি। এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠে এলাকায়।

এর প্রতিবাদে মঙ্গলবার (২ জুলাই) সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করা হয়। অবস্থা বেগতিক দেখে যারা মাংস খেয়েছিলেন তারা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে এখন এলাকা ছাড়া। ঘটনাটি ঘটেছে পাবনার বেড়া উপজেলার হাটুরিয়া-নাকালিয়া ইউনিয়নের চড় পেঁচাকোলা গ্রামে।

চলতি বছরের ২৯ জুন পাবনার বেড়া শাহা পাড়ার মহিউদ্দিন চৌধুরী স্থানীয় মানিক হোসেন, আব্দুস সোবহান, হিরো আলমসহ কয়েকজনকে ঘোড়া কিনে আনতে বলেন। তারা এক হাজার টাকা দিয়ে একটি ঘোড়া কিনে হাটুরিয়া-নাকালিয়া ইউনিয়নের চড় পেঁচাকোলা নদীর পাড়ে উল্লাস করে সেটি জবাই করেন। জবাই ও রান্নার ভিডিও ধারণ করে সবাই মিলে সেই মাংস খান এবং সেই ভিওি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন।

এ নিয়ে মুসল্লিদের মধ্যে দেখা দেয় মিশ্র প্রতিক্রিয়া। মঙ্গলবার পেঁচাকোলা চার মাথা মোড়ে এলাকার মুসল্লি ও স্থানীয়দের অনেকেই এর প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন। এ বিষয়ে হাটুরিয়া চারমাথা বাজারের ব্যবসায়ী আলামিন বলেন, যার নির্দেশে ঘোড়ার মাংস রান্না হয়েছে এবং যারা খেয়েছেন তাদের সবার শাস্তি চাই।

মডেল মসজিদের ইমাম মোস্তফা কামাল ও বেড়া শাহ্ পাড়া মাসজিদের ইমাম শাহারিয়ার বিন জাকারিয়া বলেন, হাদিস শরীফে ঘোড়ার মাংস খাওয়ার পক্ষে-বিপক্ষের দুই ধরনেরই বক্তব্য আছে। তাই এর মাংস খাওয়া থেকে বিরত থাকলেই ভালো।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মিজানুর রহমান জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চড় পেঁচাকোলা এলাকায় ঘোড়া জবাই করে মাংস খাওয়ার ভিডিও দেখেছি। এতে মানুষের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

ঘোড়ার মাংস খেয়ে এলাকা ছাড়া মানুষ

আপডেট সময় : ০৫:৫৫:৫৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪

মাংস খাবেন বলে শখ করে ঘোড়া কিনেছিরেন আনান মহিউদ্দিন চৌধুরী। এরপর জবাই করে রান্নাও করা হয়। আয়োজন করে সেই মাংস খাওয়ার ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। আর তাতেই বাধে বিপত্তি। এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠে এলাকায়।

এর প্রতিবাদে মঙ্গলবার (২ জুলাই) সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করা হয়। অবস্থা বেগতিক দেখে যারা মাংস খেয়েছিলেন তারা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে এখন এলাকা ছাড়া। ঘটনাটি ঘটেছে পাবনার বেড়া উপজেলার হাটুরিয়া-নাকালিয়া ইউনিয়নের চড় পেঁচাকোলা গ্রামে।

চলতি বছরের ২৯ জুন পাবনার বেড়া শাহা পাড়ার মহিউদ্দিন চৌধুরী স্থানীয় মানিক হোসেন, আব্দুস সোবহান, হিরো আলমসহ কয়েকজনকে ঘোড়া কিনে আনতে বলেন। তারা এক হাজার টাকা দিয়ে একটি ঘোড়া কিনে হাটুরিয়া-নাকালিয়া ইউনিয়নের চড় পেঁচাকোলা নদীর পাড়ে উল্লাস করে সেটি জবাই করেন। জবাই ও রান্নার ভিডিও ধারণ করে সবাই মিলে সেই মাংস খান এবং সেই ভিওি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন।

এ নিয়ে মুসল্লিদের মধ্যে দেখা দেয় মিশ্র প্রতিক্রিয়া। মঙ্গলবার পেঁচাকোলা চার মাথা মোড়ে এলাকার মুসল্লি ও স্থানীয়দের অনেকেই এর প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন। এ বিষয়ে হাটুরিয়া চারমাথা বাজারের ব্যবসায়ী আলামিন বলেন, যার নির্দেশে ঘোড়ার মাংস রান্না হয়েছে এবং যারা খেয়েছেন তাদের সবার শাস্তি চাই।

মডেল মসজিদের ইমাম মোস্তফা কামাল ও বেড়া শাহ্ পাড়া মাসজিদের ইমাম শাহারিয়ার বিন জাকারিয়া বলেন, হাদিস শরীফে ঘোড়ার মাংস খাওয়ার পক্ষে-বিপক্ষের দুই ধরনেরই বক্তব্য আছে। তাই এর মাংস খাওয়া থেকে বিরত থাকলেই ভালো।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মিজানুর রহমান জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চড় পেঁচাকোলা এলাকায় ঘোড়া জবাই করে মাংস খাওয়ার ভিডিও দেখেছি। এতে মানুষের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।