ঢাকা ০৯:৪২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আ’ লীগ অফিসে বোমা হামলা, ২৩ বছরেও বিচার না হওয়ায় হতাশ নিহতদের স্বজনরা

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ১২:১৮:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪ ৩৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগ অফিসে নৃশংস বোমা হামলার বিচার ২৩ বছরেও না হওয়ায় ক্ষুব্ধ ও হতাশ আহত এবং নিহতদের স্বজনরা। মামলার নথিতে গুরুত্বপূর্ণ কাগজ না থাকায় তদন্তকারী কর্মকর্তাকে তলব করেছেন বিচারিক আদালত।

নারায়ণগঞ্জ নগরীর চাষাঢ়া বিজয় স্তম্ভের পাশে ২০০১ সালের ১৬ জুন আওয়ামী লীগ অফিসে বোমা হামলায় প্রাণ হারান ২০ জন। এ ঘটনায় আহত হন সংসদ সদস্য শামীম ওসমানসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী। অনেকেই পঙ্গুত্ব বরণ করেন।

এর পরদিন বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে হত্যা এবং বিস্ফোরক আইনে দুটি মামলা করেন শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট খোকন সাহা।

২০০৩ সালে বিস্ফোরক মামলায় ও ২০১৪ সালে হত্যা মামলায় ৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় তদন্তকারী সংস্থা। এ মামলায় কারাগারে রয়েছেন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়া যুবদল নেতা শাহাদাতউল্লাহ জুয়েল। পলাতক আনিসুল মোরছালিন ও মাহাবুবুল মুত্তাকিন। জামিনে রয়েছেন সে সময়কার ওয়ার্ড কাউন্সিলর শওকত হাসেম শকু।

১৯ জনের সাক্ষ্যে মূল বিষয়গুলো উঠে আসায় বিচার শেষ হতে আশাবাদী মামলার বাদী ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট খোকন সাহা।মামলার দ্রুত বিচার ও দোষীদের শাস্তি কার্যকর এবং ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা চান নারায়ণগঞ্জবাসী।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

আ’ লীগ অফিসে বোমা হামলা, ২৩ বছরেও বিচার না হওয়ায় হতাশ নিহতদের স্বজনরা

আপডেট সময় : ১২:১৮:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪

নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগ অফিসে নৃশংস বোমা হামলার বিচার ২৩ বছরেও না হওয়ায় ক্ষুব্ধ ও হতাশ আহত এবং নিহতদের স্বজনরা। মামলার নথিতে গুরুত্বপূর্ণ কাগজ না থাকায় তদন্তকারী কর্মকর্তাকে তলব করেছেন বিচারিক আদালত।

নারায়ণগঞ্জ নগরীর চাষাঢ়া বিজয় স্তম্ভের পাশে ২০০১ সালের ১৬ জুন আওয়ামী লীগ অফিসে বোমা হামলায় প্রাণ হারান ২০ জন। এ ঘটনায় আহত হন সংসদ সদস্য শামীম ওসমানসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী। অনেকেই পঙ্গুত্ব বরণ করেন।

এর পরদিন বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে হত্যা এবং বিস্ফোরক আইনে দুটি মামলা করেন শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট খোকন সাহা।

২০০৩ সালে বিস্ফোরক মামলায় ও ২০১৪ সালে হত্যা মামলায় ৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় তদন্তকারী সংস্থা। এ মামলায় কারাগারে রয়েছেন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়া যুবদল নেতা শাহাদাতউল্লাহ জুয়েল। পলাতক আনিসুল মোরছালিন ও মাহাবুবুল মুত্তাকিন। জামিনে রয়েছেন সে সময়কার ওয়ার্ড কাউন্সিলর শওকত হাসেম শকু।

১৯ জনের সাক্ষ্যে মূল বিষয়গুলো উঠে আসায় বিচার শেষ হতে আশাবাদী মামলার বাদী ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট খোকন সাহা।মামলার দ্রুত বিচার ও দোষীদের শাস্তি কার্যকর এবং ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা চান নারায়ণগঞ্জবাসী।