ঢাকা ০৪:১৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ১০:১৬:২৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪ ৪৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

হজের আনুষ্ঠানিকতা শুক্রবার (১৪ জুন) শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে হজ পালন করতে সৌদি আরবের মিনায় পৌঁছে গেছেন মুসল্লিরা। বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) সন্ধ্যার পর থেকে কেউ হেঁটে, কেউ বাহনে চড়ে সেখানে জড়ো হন।

আরবি বর্ষপঞ্জিকার শেষ মাস জিলহজের ৮ তারিখ থেকে শুরু হয় হজ। তারপর ৯ জিলহজে হয় আরাফাতের দিন। আর ১০ জিলহজে পশু কুরবানি করেন হাজিরা। আরবি হিজরি সন ১৪৪৫ এর জিলহজ মাসের ৮ তারিখ আজ। ১০ জিলহজ কুরবানি শেষে আরো দুইদিন থাকে হজের বিভিন্ন আনুষ্ঠানিকতা। তার মানে হজ সম্পন্ন করতে সময় লাগে পাঁচদিন।

সারা বিশ্বের প্রায় ২০ লাখ মানুষ এবার হজে অংশ নিয়েছেন। বাংলাদেশ থেকে হজে গেছেন ৮২ হাজার ৭৭২ জন। হজের প্রথম দিন পুরুষ হাজীরা সেলাই ছাড়া সাদা কাপড় পরেন। অপরদিকে, নারী হাজীরা ঢিলেঢালা পোশাক পরেন। এদিন আরও কিছু নিয়ম নীতি মানতে হয়। যেমন কারও সাথে রাগারাগি না করা এবং যৌন সম্পর্কে লিপ্ত না হওয়া।

ইহরাম বাধার পরে দলে দলে হাজিরা মিনায় যান। বেশিরভাগ মানুষ বাসে ও গাড়িতে গেলেও কেউ কেউ হেঁটে মিনায় যান। এটি আট কিলোমিটারের একটি পথ। হজের অংশ হিসেবে ৮ জিলহজ মিনায় সারা দিন থাকবেন হাজিরা। ৯ জিলহজ আরাফাতের ময়দানে সূর্যাস্ত পর্যন্ত অবস্থান করবেন। সন্ধ্যার পর মুজদালিফার উদ্দেশে রওয়ানা করবেন। সেখানে রাত যাপন ও পাথর সংগ্রহ করবেন।

এরপর ১০ জিলহজ ফজরের নামাজ আদায় করে মুজদালিফা থেকে আবার মিনায় ফিরে আসবেন। তারপর বড় শয়তানকে পাথর নিক্ষেপ, কুরবানি ও চুল ছেঁটে স্বাভাবিক পোশাকে মক্কায় কাবা শরিফ তাওয়াফ করবেন। তাওয়াফ, সাঈ শেষে মিনায় ফিরে গিয়ে ১১ ও ১২ জিলহজ অবস্থান এবং প্রতিদিন তিনটি শয়তানকে পাথর নিক্ষেপ করবেন। শয়তানকে পাথর নিক্ষেপের সময় যাতে কোনো দুর্ঘটনা না ঘটে। সেজন্য সৌদি হজ কর্তৃপক্ষ প্রতিবারের মতো বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু

সংবাদ প্রকাশের সময় : ১০:১৬:২৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪

হজের আনুষ্ঠানিকতা শুক্রবার (১৪ জুন) শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে হজ পালন করতে সৌদি আরবের মিনায় পৌঁছে গেছেন মুসল্লিরা। বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) সন্ধ্যার পর থেকে কেউ হেঁটে, কেউ বাহনে চড়ে সেখানে জড়ো হন।

আরবি বর্ষপঞ্জিকার শেষ মাস জিলহজের ৮ তারিখ থেকে শুরু হয় হজ। তারপর ৯ জিলহজে হয় আরাফাতের দিন। আর ১০ জিলহজে পশু কুরবানি করেন হাজিরা। আরবি হিজরি সন ১৪৪৫ এর জিলহজ মাসের ৮ তারিখ আজ। ১০ জিলহজ কুরবানি শেষে আরো দুইদিন থাকে হজের বিভিন্ন আনুষ্ঠানিকতা। তার মানে হজ সম্পন্ন করতে সময় লাগে পাঁচদিন।

সারা বিশ্বের প্রায় ২০ লাখ মানুষ এবার হজে অংশ নিয়েছেন। বাংলাদেশ থেকে হজে গেছেন ৮২ হাজার ৭৭২ জন। হজের প্রথম দিন পুরুষ হাজীরা সেলাই ছাড়া সাদা কাপড় পরেন। অপরদিকে, নারী হাজীরা ঢিলেঢালা পোশাক পরেন। এদিন আরও কিছু নিয়ম নীতি মানতে হয়। যেমন কারও সাথে রাগারাগি না করা এবং যৌন সম্পর্কে লিপ্ত না হওয়া।

ইহরাম বাধার পরে দলে দলে হাজিরা মিনায় যান। বেশিরভাগ মানুষ বাসে ও গাড়িতে গেলেও কেউ কেউ হেঁটে মিনায় যান। এটি আট কিলোমিটারের একটি পথ। হজের অংশ হিসেবে ৮ জিলহজ মিনায় সারা দিন থাকবেন হাজিরা। ৯ জিলহজ আরাফাতের ময়দানে সূর্যাস্ত পর্যন্ত অবস্থান করবেন। সন্ধ্যার পর মুজদালিফার উদ্দেশে রওয়ানা করবেন। সেখানে রাত যাপন ও পাথর সংগ্রহ করবেন।

এরপর ১০ জিলহজ ফজরের নামাজ আদায় করে মুজদালিফা থেকে আবার মিনায় ফিরে আসবেন। তারপর বড় শয়তানকে পাথর নিক্ষেপ, কুরবানি ও চুল ছেঁটে স্বাভাবিক পোশাকে মক্কায় কাবা শরিফ তাওয়াফ করবেন। তাওয়াফ, সাঈ শেষে মিনায় ফিরে গিয়ে ১১ ও ১২ জিলহজ অবস্থান এবং প্রতিদিন তিনটি শয়তানকে পাথর নিক্ষেপ করবেন। শয়তানকে পাথর নিক্ষেপের সময় যাতে কোনো দুর্ঘটনা না ঘটে। সেজন্য সৌদি হজ কর্তৃপক্ষ প্রতিবারের মতো বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।