ঢাকা ০৮:২৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পদার্থবিজ্ঞান প্রথম পত্রের পরিবর্তে এলো দ্বিতীয় পত্র

বাংলা টাইমস ডেস্ক
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ১২:০৫:১৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪ ১৫ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডে এইচএসসি পরীক্ষার একটি কেন্দ্রে প্রশ্ন পত্রের ভুল সেট চলে আসে। এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন অনুযায়ী বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) পদার্থবিজ্ঞান প্রথম পত্রের প্রশ্ন হাতে পাওয়ার কথা ছিল পরীক্ষার্থীদের।

এদিন উপজেলার ভাটিয়ারী বিজয় স্মরণী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ কেন্দ্রে প্রশ্ন হাতে পেয়েই পরীক্ষার্থীদের চোখ ছানাবড়া। তারা সবাই প্রস্তুতি নিয়ে এসেছিলেন পদার্থবিজ্ঞান প্রথম পত্রের। কিন্তু হলরুমে বসে প্রশ্ন পান পদার্থবিজ্ঞান দ্বিতীয় পত্রের।

পরে পরীক্ষার্থীদের হৈচৈ দেখে পরীক্ষা কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা শিক্ষকরা প্রশ্ন হাতে নিয়ে দেখেন ‘ভুল’ সেট দেওয়া হয়েছে। প্রায় দুই ঘণ্টা পর ‘সঠিক’ পত্রের প্রশ্ন নিয়ে এনে পরীক্ষার্থীদের দেওয়া হয়। ভুল প্রশ্নপত্র বিতরণের ফলে সকাল ১০টার পরীক্ষা শুরু হয় বেলা ১২টায়। তবে ‘কার’ ভুলে এমনটা হয়েছে তা খতিয়ে দেখতে দুইটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

অভিভাবকরা জানান, পরীক্ষার শুরুতে ভুল প্রশ্নপত্র বিতরণ করা হয়। প্রশ্ন হাতে পেয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে হৈচৈ শুরু হয়। এরপর শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে প্রশ্নপত্রটি নিয়ে ফেলা হয়। ২ ঘন্টা পর প্রথম পত্রের প্রশ্নপত্র সংগ্রহ করে পুনরায় পরীক্ষা শুরু হয়। এঘটনায় এলাকার মধ্যে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়। ভুল প্রশ্ন পত্র বিতরণের বিষয়ে জানতে কেন্দ্র সচিব শিব শংকর শীলকে মোবাইলে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোস্তফা আলম সরকার বলেন, পরীক্ষার আগের রাতে প্রশ্নপত্র সংগ্রহ করার দায়িত্ব থাকে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্র সচিবের। জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের ট্রেজারি থেকে প্রত্যেক কেন্দ্র সচিবকে বা তাদের প্রতিনিধিকে প্রশ্নপত্র বুঝিয়ে দেওয়া হয়।

এদিকে সীতাকুন্ডু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কে এম রফিকুল ইসলাম বলেন, কার ভুলে এ ঘটনা ঘটেছে তা বের করতে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক কার্যালয় থেকে ০৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া উপজেলা প্রশাসন থেকে সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. আলাউদ্দিনকে আহবায়ক করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট আরো একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এদিকে, এ ঘটনায় কেন্দ্র সচিব শিব শংকর শীল ও পরীক্ষা কমিটির কনভেইনার মোঃ নোমানকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান রেজাউল করিম সাংবাদিকদের বলেন, আগামী রোববার পদার্থবিজ্ঞান দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ওই পরীক্ষার প্রশ্নের যেই সেট অগ্রিম বিলি করা হয় তা বাতিল করা হয়েছে। তাঁদের হাতে প্রস্তুত থাকা বিকল্প প্রশ্ন দিয়েই রোববারের পরীক্ষা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

পদার্থবিজ্ঞান প্রথম পত্রের পরিবর্তে এলো দ্বিতীয় পত্র

সংবাদ প্রকাশের সময় : ১২:০৫:১৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪

চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডে এইচএসসি পরীক্ষার একটি কেন্দ্রে প্রশ্ন পত্রের ভুল সেট চলে আসে। এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন অনুযায়ী বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) পদার্থবিজ্ঞান প্রথম পত্রের প্রশ্ন হাতে পাওয়ার কথা ছিল পরীক্ষার্থীদের।

এদিন উপজেলার ভাটিয়ারী বিজয় স্মরণী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ কেন্দ্রে প্রশ্ন হাতে পেয়েই পরীক্ষার্থীদের চোখ ছানাবড়া। তারা সবাই প্রস্তুতি নিয়ে এসেছিলেন পদার্থবিজ্ঞান প্রথম পত্রের। কিন্তু হলরুমে বসে প্রশ্ন পান পদার্থবিজ্ঞান দ্বিতীয় পত্রের।

পরে পরীক্ষার্থীদের হৈচৈ দেখে পরীক্ষা কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা শিক্ষকরা প্রশ্ন হাতে নিয়ে দেখেন ‘ভুল’ সেট দেওয়া হয়েছে। প্রায় দুই ঘণ্টা পর ‘সঠিক’ পত্রের প্রশ্ন নিয়ে এনে পরীক্ষার্থীদের দেওয়া হয়। ভুল প্রশ্নপত্র বিতরণের ফলে সকাল ১০টার পরীক্ষা শুরু হয় বেলা ১২টায়। তবে ‘কার’ ভুলে এমনটা হয়েছে তা খতিয়ে দেখতে দুইটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

অভিভাবকরা জানান, পরীক্ষার শুরুতে ভুল প্রশ্নপত্র বিতরণ করা হয়। প্রশ্ন হাতে পেয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে হৈচৈ শুরু হয়। এরপর শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে প্রশ্নপত্রটি নিয়ে ফেলা হয়। ২ ঘন্টা পর প্রথম পত্রের প্রশ্নপত্র সংগ্রহ করে পুনরায় পরীক্ষা শুরু হয়। এঘটনায় এলাকার মধ্যে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়। ভুল প্রশ্ন পত্র বিতরণের বিষয়ে জানতে কেন্দ্র সচিব শিব শংকর শীলকে মোবাইলে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোস্তফা আলম সরকার বলেন, পরীক্ষার আগের রাতে প্রশ্নপত্র সংগ্রহ করার দায়িত্ব থাকে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্র সচিবের। জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের ট্রেজারি থেকে প্রত্যেক কেন্দ্র সচিবকে বা তাদের প্রতিনিধিকে প্রশ্নপত্র বুঝিয়ে দেওয়া হয়।

এদিকে সীতাকুন্ডু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কে এম রফিকুল ইসলাম বলেন, কার ভুলে এ ঘটনা ঘটেছে তা বের করতে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক কার্যালয় থেকে ০৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া উপজেলা প্রশাসন থেকে সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. আলাউদ্দিনকে আহবায়ক করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট আরো একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এদিকে, এ ঘটনায় কেন্দ্র সচিব শিব শংকর শীল ও পরীক্ষা কমিটির কনভেইনার মোঃ নোমানকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান রেজাউল করিম সাংবাদিকদের বলেন, আগামী রোববার পদার্থবিজ্ঞান দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ওই পরীক্ষার প্রশ্নের যেই সেট অগ্রিম বিলি করা হয় তা বাতিল করা হয়েছে। তাঁদের হাতে প্রস্তুত থাকা বিকল্প প্রশ্ন দিয়েই রোববারের পরীক্ষা হবে।