ঢাকা ০২:৪৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নাফনদীতে মিয়ানমার জাহাজ, নতুন করে আতংক

কক্সবাজার প্রতিনিধি
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৮:৩১:৪৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪ ৬৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

কক্সবাজারের টেকনাফে মিয়ানমার সীমান্তের ওপার থেকে বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) রাতভর ভেসে আসে বিস্ফোরণের বিকট শব্দ। শুক্রবার (১৪ জুন) সকাল থেকে সেখানে পরিস্থিতি শান্ত। তবে মিয়ানমারের একটি জাহাজ শুক্রবার (১৪ জুন) সকাল থেকে নাফনদীর একই জায়গায় অবস্থান করছে। এনিয়ে শুরু হয়েছে নতুন আতংক।

সীমান্তের বাসিন্দারা জানান, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ৩টা পর্যন্ত থেমে থেমে মর্টার শেল ও গ্রেনেড বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়। এতে টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ ও সেন্টমার্টিনের সীমান্ত এলাকা কেঁপে উঠে।

এদিকে শুক্রবার (১৪ জুন) ভোর থেকে সেখানকার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। বিকাল ৫ টা পর্যন্ত সেখান থেকে আর কোনও শব্দ পাওয়া যায়নি। তবে নাফনদীতে মিয়ানমারের একটি যুদ্ধ জাহাজ অবস্থান করতে দেখা গেছে।

টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ মিস্ত্রীপাড়ার এক বাসিন্দা বলেন, বিস্ফোরণ ও গোলাগুলির শব্দে আতঙ্কে রাত কাটছে। মিয়ানমারের কিছু এলাকা থেকে আগুনের ধোঁয়া উড়তেও দেখা গেছে। বিস্ফোরণের শব্দে প্রায়ই কম্পন তৈরি হয়।

সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আবদুস সালাম জানান, গত বুধবার থেকে নাফনদীর টেকনাফের মৌলভীপাড়ার বিপরীতে মিয়ানমারের কাছাকাছি জায়গায় দেখা মেলে বড় আকারের একটি জাহাজের। সেদিন রাত ৯টা থেকেই পাওয়া যায় বিস্ফোরণের শব্দ।

এদিকে, মিয়ানমার থেকে গুলিবর্ষণের ঘটনায় আতঙ্কে বন্ধ করে দেয়া হয় টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে নৌযান চলাচল। ৭দিন বন্ধ থাকার পর বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) বিকল্প পথে চলাচল শুরু করে নৌযান।

টেকনাফ ইউএনও মোহাম্মদ আদনান চৌধুরী জানান, নাফ নদীর মিয়ানমার অংশে একটি বড় জাহাজ অবস্থান করায় আপাতত নৌপথ দিয়ে সেন্টমার্টিন যাতায়াত বন্ধ রাখা হয়েছে। শুক্রবার (১৪ জুন) দুপুরে কক্সবাজার থেকে এমভি বারো আউলিয়া নামে একটি জাহাজ দুই মাসের খাদ্য পণ্য নিয়ে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে যায়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

নাফনদীতে মিয়ানমার জাহাজ, নতুন করে আতংক

সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৮:৩১:৪৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪

কক্সবাজারের টেকনাফে মিয়ানমার সীমান্তের ওপার থেকে বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) রাতভর ভেসে আসে বিস্ফোরণের বিকট শব্দ। শুক্রবার (১৪ জুন) সকাল থেকে সেখানে পরিস্থিতি শান্ত। তবে মিয়ানমারের একটি জাহাজ শুক্রবার (১৪ জুন) সকাল থেকে নাফনদীর একই জায়গায় অবস্থান করছে। এনিয়ে শুরু হয়েছে নতুন আতংক।

সীমান্তের বাসিন্দারা জানান, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ৩টা পর্যন্ত থেমে থেমে মর্টার শেল ও গ্রেনেড বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়। এতে টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ ও সেন্টমার্টিনের সীমান্ত এলাকা কেঁপে উঠে।

এদিকে শুক্রবার (১৪ জুন) ভোর থেকে সেখানকার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। বিকাল ৫ টা পর্যন্ত সেখান থেকে আর কোনও শব্দ পাওয়া যায়নি। তবে নাফনদীতে মিয়ানমারের একটি যুদ্ধ জাহাজ অবস্থান করতে দেখা গেছে।

টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ মিস্ত্রীপাড়ার এক বাসিন্দা বলেন, বিস্ফোরণ ও গোলাগুলির শব্দে আতঙ্কে রাত কাটছে। মিয়ানমারের কিছু এলাকা থেকে আগুনের ধোঁয়া উড়তেও দেখা গেছে। বিস্ফোরণের শব্দে প্রায়ই কম্পন তৈরি হয়।

সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আবদুস সালাম জানান, গত বুধবার থেকে নাফনদীর টেকনাফের মৌলভীপাড়ার বিপরীতে মিয়ানমারের কাছাকাছি জায়গায় দেখা মেলে বড় আকারের একটি জাহাজের। সেদিন রাত ৯টা থেকেই পাওয়া যায় বিস্ফোরণের শব্দ।

এদিকে, মিয়ানমার থেকে গুলিবর্ষণের ঘটনায় আতঙ্কে বন্ধ করে দেয়া হয় টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে নৌযান চলাচল। ৭দিন বন্ধ থাকার পর বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) বিকল্প পথে চলাচল শুরু করে নৌযান।

টেকনাফ ইউএনও মোহাম্মদ আদনান চৌধুরী জানান, নাফ নদীর মিয়ানমার অংশে একটি বড় জাহাজ অবস্থান করায় আপাতত নৌপথ দিয়ে সেন্টমার্টিন যাতায়াত বন্ধ রাখা হয়েছে। শুক্রবার (১৪ জুন) দুপুরে কক্সবাজার থেকে এমভি বারো আউলিয়া নামে একটি জাহাজ দুই মাসের খাদ্য পণ্য নিয়ে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে যায়।