https://bangla-times.com/
ঢাকাবৃহস্পতিবার , ৬ জুন ২০২৪

দাম বাড়তে পারে যেসব পণ্যের

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক
জুন ৬, ২০২৪ ৯:২৭ অপরাহ্ণ । ৩৭ জন
Link Copied!

২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাব পেশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। বাজেটে বেশ কিছু পণ্যের শুল্ক ও কর বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

আরও পড়ুন :ফোনে কথা বলতে গুনতে হবে বাড়তি টাকা

সাধারণত বাজেটে শুল্ক-কর পরিবর্তনের কারণে পণ্য ও সেবার দাম উঠানামা করে। প্রস্তাবিত বাজেটে যেসব পণ্যের শুল্ক-কর বাড়ানোর কারণে দাম বাড়তে পারে তা তুলে ধরা হলো। বাজেটে যেসব শুল্ক-কর প্রস্তাব করা হয়, তা তাৎক্ষণিকভাবে কার্যকর হয়।

সিগারেট : এবছরও সিগারেট উৎপাদন পর্যায়ে সম্পূরক শুল্ক ও মূল্যস্তর বাড়ানো হয়েছে। ফলে সব ধরনের সিগারেটের দাম বাড়তে পারে। সিগারেটের ক্ষেত্রে বিভিন্ন স্তরে সম্পূরক শুল্ক ৬০ থেকে ৬৫ দশমিক ৫ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়েছে।

এয়ারকন্ডিশনার-রেফ্রিজারেটর: এসি উৎপাদনে ব্যবহৃত কম্প্রেসার ও স্টিল সিটের পাশাপাশি রেফ্রিজারেটরের কাঁচামাল আমদানিতে শুল্ক বাড়ানো হয়েছে। এর ফলে এয়ারকন্ডিশনার ও রেফ্রিজারেটরের দাম বাড়তে পারে।

আরও পড়ুন : বাজেট প্রতিক্রিয়া/ বাজেট ইতিবাচক, চাপ বাড়বে ব্যবসায়ীদের ওপর

পানির ফিল্টার: দেশে পানি পরিশোধন যন্ত্র উৎপাদন হওয়ায় পণ্যটি আমদানিতে শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ করা হয়েছে। এর ফলে ব্যবহৃত পানির ফিল্টারের দাম বাড়তে পারে।

মোবাইলে কথা বলা ও এসএমএস: শুল্ক বাড়ায় মোবাইল ফোনের এসএমএস ও কলরেটে খরচ বাড়তে পারে।

জ্বালানি খাত: লুব অয়েল, ফার্নেস অয়েল,মিনারেল লুব অয়েল ও বেজ অয়েলের ন্যূনতম শুল্কায়ন মূল্য আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সমন্বয় করার প্রস্তাব করায় এসব পণ্যের শুল্ককর বাড়তে পারে।

এলইডি বাল্ব: এনার্জি সেভিং বাল্ব উৎপাদনের উপকরণ আমদানিতে শুল্ক ১০ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে। ফলে এলইডি বাল্বের দাম বাড়তে পারে।

ফিলিং স্টেশন স্থাপন, সিএনজি কনভার্সন কিট ও সিলিন্ডার: সিএনজি এলপিজি ফিলিং স্টেশন স্থাপন, সিএনজি কনভার্সন কিট, সিলিন্ডার অন্যান্য সরঞ্জামের আমদানি শুল্ক তিন শতাংশ থেকে ৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করায় ব্যয় বাড়তে পারে এ খাতে।

আরও পড়ুন : স্বাস্থ্য খাতে বরাদ্দ বেড়েছে, কমেছে মাতৃমৃত্যুর হার

বিদ্যুৎকেন্দ্রের ইকুইপমেন্ট: রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রের পাশাপাশি বিভিন্ন বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী কেন্দ্রের জন্য ইকুইপমেন্ট ও ইরেকশন ম্যাটেরিয়াল আমদানিতে শূন্য শতাংশ শুল্ককর থেকে বাড়িয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে।

ইপিজেডের আমদানিকৃত যন্ত্রপাতি ও নির্মাণ সামগ্রী: অর্থনৈতিক অঞ্চলের মূলধনী যন্ত্রপাতি ও নির্মাণ সামগ্রী আমদানিতে রেয়াতি সুবিধা (শুল্কমুক্ত) পরিবর্তে এক শতাংশ হারে শুল্ককর আরোপের সুপারিশ করা হয়েছে।

গাড়ি কনভার্সন খরচ: গাড়ি সিএনজি-এলপিজিতে কনভার্সনের ব্যবহৃত কিট,সিলিন্ডার ও অন্যান্য যন্ত্রপাতি ও যন্ত্রাংশ আমদানিতে শুল্ক তিন শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে। এই কারণে গাড়ি কনভার্শন খরচ বাড়তে পারে।

কাজু বাদাম: খোসা ছাড়ানো কাজু বাদাম আমদানিতে শুল্ক ৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করা হয়েছে। এতে কাজু বাদামের দাম বাড়তে পারে।

বিনোদন সেবা; বিনোদনকেন্দ্র, তথা অ্যামিউজমেন্ট পার্ক ও থিম পার্কে ভ্যাট দ্বিগুণ (১৫ শতাংশ) করা হচ্ছে। সব মিলিয়ে বাড়তে পারে ঘোরাঘুরি ও বিনোদনের খরচ।