ঢাকা ০২:৫৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জলাভূমির সৌন্দর্যে মুগ্ধ ভ্রমণ পিপাসুরা

আজিজুল বুলু,নীলফামারী
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৩:৩০:৪৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪ ৫৩ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নীলফামারী’র উপকন্ঠে চরা সাইফুনে পানি’র উত্তল তরঙ্গের অপরুপ জলাধারার নান্দনিক পর্যটক স্পটে পরিণত হয়েছে। চারা নদী বেষ্টিত সাইফুন এখন সবার নজর কাড়ছে। প্রতিদিন নানা প্রান্ত থেকে ভ্রমণ পিপাসুরা এই জলাভূমির অপরুপ সৌন্দর্যের দূশ্য উপভোগ করছেন।

নীলফামারী পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী আশরাফুল আলম জানান, দেশের সর্ববৃহত্তম সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারেজের দিনাজপুর খালে চারা নদী’র পানি আন্ডারপাসের জন্য চারা সাইফুন নির্মাণ করা হয়েছে। এই জলাভূমি’র উপর নির্মিত অবকাঠামো এ অ লের মানুষের দৃষ্টিন্দনে নান্দনিক পর্যটন স্পট হিসাবে গড়ে তোলা হয়েছে।

এই জলাভুমি’র তরঙ্গ নীলা’র অপরুপ দূশ্য মুগ্ধ করছে দর্শনার্থীদের।চারা সাইফুস স্পটে রংপুর থেকে আসা দর্শনার্থী লাকির কাছে এ প্রতিবেদক জানতে চায়:অপনাকে এই স্পটটি কেমন লাগছে।

তিনি বলেন, নীলফামারী পানি উন্নয়ন বোর্ড এই জলাভুমির উপর নির্মিত অবকাঠামো চারা সাইফুন পর্যটন স্পট হিসাবে গড়ে তুলেছে সময় কাটানোর মত একটি নান্দনিক স্পট; দেথে মুগ্ধ হয়েছি। আমি সংশ্লিষ্ট কর্তপক্ষকে অনুরোধ জানাবো শিশুদের জন্য রাইটস স্থাপন করা হয়।

নীলফামারী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী অতিকুর রহমানের সাথে চারা সাইফুন পর্যটন স্পটটি ভ্রমণ পিপাষুদের চাওয়া-পাওয়ার প্রসঙ্গ নিয়ে কথা হলে; তিনি জানান, দর্শনার্থীদের প্রত্যাশা পূরণে চারা সাইফুন পূনাঙ্গ পর্যটক স্পট হিসাবে গড়ে তোলা হবে । ভ্রমনে অসুন নীলফামারী শহরের উপকণ্ঠে দেড় কিরোমিটার দুরে অবস্থিত চারা সাইফুন স্পটে।

নীলফামারী সদর উপজেলার ইটাখোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হেদায়েত আলী শাহ বলেন: দুই একর জলাভুমির উপর নির্মিত দৃষ্টিনন্দন চারা সাইফুন স্পটে প্রতিদিন নানা প্রান্ত থেকে হাজার-হাজার দর্শনার্থী পানি’র তরঙ্গনীলা উপভোগ করতে আসেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

জলাভূমির সৌন্দর্যে মুগ্ধ ভ্রমণ পিপাসুরা

সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৩:৩০:৪৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪

নীলফামারী’র উপকন্ঠে চরা সাইফুনে পানি’র উত্তল তরঙ্গের অপরুপ জলাধারার নান্দনিক পর্যটক স্পটে পরিণত হয়েছে। চারা নদী বেষ্টিত সাইফুন এখন সবার নজর কাড়ছে। প্রতিদিন নানা প্রান্ত থেকে ভ্রমণ পিপাসুরা এই জলাভূমির অপরুপ সৌন্দর্যের দূশ্য উপভোগ করছেন।

নীলফামারী পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী আশরাফুল আলম জানান, দেশের সর্ববৃহত্তম সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারেজের দিনাজপুর খালে চারা নদী’র পানি আন্ডারপাসের জন্য চারা সাইফুন নির্মাণ করা হয়েছে। এই জলাভূমি’র উপর নির্মিত অবকাঠামো এ অ লের মানুষের দৃষ্টিন্দনে নান্দনিক পর্যটন স্পট হিসাবে গড়ে তোলা হয়েছে।

এই জলাভুমি’র তরঙ্গ নীলা’র অপরুপ দূশ্য মুগ্ধ করছে দর্শনার্থীদের।চারা সাইফুস স্পটে রংপুর থেকে আসা দর্শনার্থী লাকির কাছে এ প্রতিবেদক জানতে চায়:অপনাকে এই স্পটটি কেমন লাগছে।

তিনি বলেন, নীলফামারী পানি উন্নয়ন বোর্ড এই জলাভুমির উপর নির্মিত অবকাঠামো চারা সাইফুন পর্যটন স্পট হিসাবে গড়ে তুলেছে সময় কাটানোর মত একটি নান্দনিক স্পট; দেথে মুগ্ধ হয়েছি। আমি সংশ্লিষ্ট কর্তপক্ষকে অনুরোধ জানাবো শিশুদের জন্য রাইটস স্থাপন করা হয়।

নীলফামারী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী অতিকুর রহমানের সাথে চারা সাইফুন পর্যটন স্পটটি ভ্রমণ পিপাষুদের চাওয়া-পাওয়ার প্রসঙ্গ নিয়ে কথা হলে; তিনি জানান, দর্শনার্থীদের প্রত্যাশা পূরণে চারা সাইফুন পূনাঙ্গ পর্যটক স্পট হিসাবে গড়ে তোলা হবে । ভ্রমনে অসুন নীলফামারী শহরের উপকণ্ঠে দেড় কিরোমিটার দুরে অবস্থিত চারা সাইফুন স্পটে।

নীলফামারী সদর উপজেলার ইটাখোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হেদায়েত আলী শাহ বলেন: দুই একর জলাভুমির উপর নির্মিত দৃষ্টিনন্দন চারা সাইফুন স্পটে প্রতিদিন নানা প্রান্ত থেকে হাজার-হাজার দর্শনার্থী পানি’র তরঙ্গনীলা উপভোগ করতে আসেন।