ঢাকা ০৪:৪৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ছোট লামিয়াকে বাঁচাতে গিয়ে বড় বোনেরও মৃত্যু

নোয়াখালী প্রতিনিধি
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৬:০১:২৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪ ২৮ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরজব্বর ইউনিয়নের ৩নম্বর ওয়ার্ডের চরমজিদ গ্রামে পানিতে ডুবে আপন দুই বোনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (১২ জুন) দুপুর দেড়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলো- চরমজিদ গ্রামের আবুল কালামের মেয়ে ইসরাত জাহান সুইম (৯) ও আফরিন আক্তার লামিয়া (৫)। সুইম স্থানীয় জামিয়া ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসার চতুর্থ শ্রেণির ও লামিয়া একই মাদরাসার শিশু শ্রেণির ছাত্রী ছিলো।

জানা গেছে, প্রতিদেনর ন্যায় দুই বোন মাদরাসা থেকে বুধবার (১২ জুন) দুপুর একটার দিকে বাড়ি ফিরে। এরপর তারা একসাথে বাড়ির পুকুরে গোসল করতে যায়। কিছুক্ষণ তাদের না দেখে খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন বাড়ির সবাই। অনেকক্ষণ খোঁজাখুঁজি করেও না পেয়ে পরিবারের সদস্যরা পুকুরে নেমে দুই বোনকে উদ্ধার করে। পরে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। ধারণা করা হচ্ছে, গোসল করতে নেমে ছোট লামিয়া পানিতে ডুবে গেলে তাকে বাঁচাতে গিয়ে বড় বোনে সুইমেরও মৃত্যু হয়।

চরজব্বর থানার ওসি কাউছার আলম ভূঁইয়া এর সত্যতা নিশ্চিত বলেন, পুকুরে গোসল করতে নেমে ছোট বোন ডুবে গেলে তাকে বাঁচাতে গিয়ে বড় বোনেরও মৃত্যু হয়। পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ না থাকায় মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

ছোট লামিয়াকে বাঁচাতে গিয়ে বড় বোনেরও মৃত্যু

সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৬:০১:২৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪

নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরজব্বর ইউনিয়নের ৩নম্বর ওয়ার্ডের চরমজিদ গ্রামে পানিতে ডুবে আপন দুই বোনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (১২ জুন) দুপুর দেড়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলো- চরমজিদ গ্রামের আবুল কালামের মেয়ে ইসরাত জাহান সুইম (৯) ও আফরিন আক্তার লামিয়া (৫)। সুইম স্থানীয় জামিয়া ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসার চতুর্থ শ্রেণির ও লামিয়া একই মাদরাসার শিশু শ্রেণির ছাত্রী ছিলো।

জানা গেছে, প্রতিদেনর ন্যায় দুই বোন মাদরাসা থেকে বুধবার (১২ জুন) দুপুর একটার দিকে বাড়ি ফিরে। এরপর তারা একসাথে বাড়ির পুকুরে গোসল করতে যায়। কিছুক্ষণ তাদের না দেখে খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন বাড়ির সবাই। অনেকক্ষণ খোঁজাখুঁজি করেও না পেয়ে পরিবারের সদস্যরা পুকুরে নেমে দুই বোনকে উদ্ধার করে। পরে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। ধারণা করা হচ্ছে, গোসল করতে নেমে ছোট লামিয়া পানিতে ডুবে গেলে তাকে বাঁচাতে গিয়ে বড় বোনে সুইমেরও মৃত্যু হয়।

চরজব্বর থানার ওসি কাউছার আলম ভূঁইয়া এর সত্যতা নিশ্চিত বলেন, পুকুরে গোসল করতে নেমে ছোট বোন ডুবে গেলে তাকে বাঁচাতে গিয়ে বড় বোনেরও মৃত্যু হয়। পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ না থাকায় মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।