ঢাকা ০৪:১২ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চেম্বারে আইনজীবীর ঝুলন্ত মরদেহ

শরীয়তপুর প্রতিনিধি
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ১২:১৮:১৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪ ৩০ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

শরীয়তপুর জজ কোর্টের এক আইনজীবীর মরদেহ তার চেম্বার থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। তার নাম- ইমরান হোসেন (৪৮)। বুধবার(১৯ জুন) রাত ৯টার দিকে শরীয়তপুর জজ কোর্ট এলাকার চেম্বার থেকে ঝুলন্ত মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

আইনজীবী ইমরান হোসেন আত্মহত্যা করেছেন বলে দাবি করছেন স্বজনরা।

জানা যায়, ইমরান জাজিরা উপজেলার মুলনা ইউনিয়নের কাউয়াদি এলাকার শাহজাহান মাতবরের ছেলে। তিনি ২০০৮ সাল থেকে শরীয়তপুর জজ কোর্টে আইন পেশায় নিযুক্ত। শহরের তুলাসার এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় স্ত্রী ও দুই সন্তান নিয়ে তিনি বসবাস করতেন। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সমনে আটং সড়কের পাশের একটি দ্বিতল ভবনে ভাড়া করা কক্ষে ইমরানের চেম্বার। বুধবার (১৯ জুন) রাত ৯টার দিকে ওই কক্ষ থেকে সিলিং ফ্যানের সাথে রশি দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় ইমরানের মরদেহ পাওয়া যায়। পুলিশ মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।

শরীয়তপুর আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম বলেন, কিছুদিন ধরে ইমরান মানসিকভাবে অস্থির ছিলেন। আর সে কারণে আত্মহত্যা করতে পারেন।

পালং মডেল থানার ওসি মেজবাহ উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, পুলিশ সিলিং ফ্যানের সাথে তার মরদেহ ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। ঘটনাটি আমরা তদন্ত করে দেখা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

চেম্বারে আইনজীবীর ঝুলন্ত মরদেহ

সংবাদ প্রকাশের সময় : ১২:১৮:১৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪

শরীয়তপুর জজ কোর্টের এক আইনজীবীর মরদেহ তার চেম্বার থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। তার নাম- ইমরান হোসেন (৪৮)। বুধবার(১৯ জুন) রাত ৯টার দিকে শরীয়তপুর জজ কোর্ট এলাকার চেম্বার থেকে ঝুলন্ত মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

আইনজীবী ইমরান হোসেন আত্মহত্যা করেছেন বলে দাবি করছেন স্বজনরা।

জানা যায়, ইমরান জাজিরা উপজেলার মুলনা ইউনিয়নের কাউয়াদি এলাকার শাহজাহান মাতবরের ছেলে। তিনি ২০০৮ সাল থেকে শরীয়তপুর জজ কোর্টে আইন পেশায় নিযুক্ত। শহরের তুলাসার এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় স্ত্রী ও দুই সন্তান নিয়ে তিনি বসবাস করতেন। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সমনে আটং সড়কের পাশের একটি দ্বিতল ভবনে ভাড়া করা কক্ষে ইমরানের চেম্বার। বুধবার (১৯ জুন) রাত ৯টার দিকে ওই কক্ষ থেকে সিলিং ফ্যানের সাথে রশি দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় ইমরানের মরদেহ পাওয়া যায়। পুলিশ মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।

শরীয়তপুর আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম বলেন, কিছুদিন ধরে ইমরান মানসিকভাবে অস্থির ছিলেন। আর সে কারণে আত্মহত্যা করতে পারেন।

পালং মডেল থানার ওসি মেজবাহ উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, পুলিশ সিলিং ফ্যানের সাথে তার মরদেহ ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। ঘটনাটি আমরা তদন্ত করে দেখা হবে।