https://bangla-times.com/
ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১৬ মে ২০২৪
  • অন্যান্য

৬৪ জেলায় বসুন্ধরা ফুড এন্ড বেভারেজের ট্রাকসেল কার্যক্রম উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক
মে ১৬, ২০২৪ ৫:৫০ অপরাহ্ণ । ৫১ জন
Link Copied!

বসুন্ধরা ফুড ডিভিশনস এর ব্যবস্থাপনায় ‘বসুন্ধরার পণ্য ভোক্তার জন্য’ এই স্লোগানে ৬৪টি জেলার ১০০টি স্পটে ট্রাকসেল কার্যক্রম পরিচালনা শুরু করেছে। বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল হেডকোয়ার্টার্স-২এ ‘ট্রাকসেল’ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইসচেয়ারম্যান সাফিয়াত সোবহান এবং ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এএইচ এম সফিকুজ্জামান।

লাইভ ভিডিও কনফারেনসিং এর মাধ্যমে ৬৪টি জেলার ১০০টি স্পটকে ডিজিটালভাবে সংযুক্ত রেখে ট্রাকসেল কার্যক্রমের শুভ সূচনা করা হয়।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন-ক্যাপ্টেন শেখ এহসান রেজা, চিফ হিউম্যান রিসোর্স অফিসার, সেক্টর – এ, বসুন্ধরা গ্রুপ, এম. এম. জসীম উদ্দীন, সিওও, ব্র্যান্ড এন্ড মার্কেটিং, সেক্টর – এ, বসুন্ধরা গ্রুপ, আব্দুস শুক্কুর, সিওও, সাপ্লাই চেইন ডিভিশনস, সেক্টর – এ, বসুন্ধরা গ্রুপ, বেলাল হোসেন, চিফ ফিন্যান্সিয়াল অফিসার, বসুন্ধরা ফুড ডিভিশনস, বসুন্ধরা গ্রুপ, রেদোয়ানুর রহমান, হেড অফসেলস, বসুন্ধরা ফুড ডিভিশনস এবং বসুন্ধরা এলপিজি, বসুন্ধরা গ্রুপসহ ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ) মুহাম্মদ আসাদুজ্জামান, পরিচালক (কার্যক্রম ও গবেষণাগার) ফকির মুহাম্মদ মুনাওয়ার হোসেন, ডেপুটি ডিরেক্টর আতিয়া সুলতানা, ডেপুটি ডিরেক্টর আফরোজা রহমান, সহকারী পরিচালক মো: আব্দুল জব্বার মন্ডল, সহকারী পরিচালক মোঃ শাহ আলম এবং বসুন্ধরা গ্রুপের ও জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা।

এছাড়াও ডিজিটাল মাধ্যমে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বরিশাল বিভাগের ডেপু টিডিরেক্টর, অপূর্ব অধিকারী, এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট বলুৎফর রহমান।

এছাড়াও কারওয়ান বাজার থেকে যুক্ত ছিলেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের ডেপুটি ডিরেক্টর বিকাশ চন্দ্র সাহা এবং ডেপুটি ডিরেক্টর মাসুম আরেফিন।

সাফিয়াত সোবহান বলেন, বসুন্ধরা গ্রুপ সব সময় দেশ ও মানুষের কল্যানে কাজ করে আসছে।তারই ধারাবাহিকতায় গেলো বছর থেকে শুরু করা আমাদের এই কার্যক্রম আরও ব্যাপকতার সাথে এই পবিত্র রমজান মাসেও আমরা পরিচালনা করেছিলাম। আমরাই প্রথম সারাদেশজুড়ে ৬৪-টি জেলায় সাশ্রয়ী মূল্যে “ট্রাকসেল” কার্যক্রম চালু করলাম।

উদ্বোধন শেষে রেদোয়ানুর রহমান (হেডঅফসেলস, বসুন্ধরা ফুড ডিভিশনস এবং বসুন্ধরা এলপিজি) বলেন, প্রতি বছর দুই ঈদের আগে থেকেই বাজারে অস্থিরতা বিরাজ করে, এতে করে ভোক্তাদের সাশ্রয়ী মূল্যে পণ্য পেতে বেশ কষ্ট হয়।বসুন্ধরা ফুড ডিভিশনস গত বছর থেকেই সীমিত আকারে ‘ট্রাকসেল’ কার্যক্রম শুরু করে। ভোক্তাদের কথা মাথায় রেখে এই বছর ব্যাপক আকারে সব কয়টি জেলায় ১০০টি স্থানে আমরা সাশ্রয়ী মূল্যে বসুন্ধরার পণ্য, ভোক্তার জন্য স্লোগানে এ কার্যক্রম শুরু করেছি। আমাদের ভাইস চেয়ারম্যান মহোদয়ের নির্দেশক্রমে প্রতি বছর আমরা সারাদেশেই এই কার্যক্রম অব্যাহত রাখবো।

বসুন্ধরা হেডকোয়ার্টারে এ কার্যক্রম অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (অতিরিক্তসচিব) এ এইচ এম সফিকুজ্জামান।

এ কার্যক্রম উদ্বোধনের পর তিনি কয়েকটি জেলায় ডিজিটালি যুক্ত হয়ে সরাসরি কথা বলেন তদসংশ্লিষ্ঠ ব্যক্তিবর্গের সাথে এবং জেনে নেন কোথায় কোথায় এই কার্য ক্রমকিভাবে পরিচালিত হবে সেই বিষয়ে অবগত হন।

বসুন্ধরা ফুড অ্যান্ড বেভারেজকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘বসুন্ধরার এই উদ্যোগের ফলে আশা করছি আমাদের পণ্য সরবরাহ ব্যবস্থায় ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। বসুন্ধরার এ কার্যক্রমের ফলে বাজার স্থিতিশীল থাকবে।

প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সাশ্রয়ী মূল্যে বসুন্ধরার তেল, ময়দা, সেমাই, হলুদ, মরিচসহ মোট ১০১টি ভোগ্য পণ্যের এই ট্রাকসেল কার্যক্রম চলবে। একজন ক্রেতা সর্বোচ্চ একটি ক্যাটাগরি থেকে একটি পণ্যই কিনতে পারবেন।ক্রেতা যদি তেল কিনতে চায়, তাহলে উনি তেলের যেকোনো একটি বোতল (১ অথবা ২ অথবা ৫ লিটার) ক্রয় করতে পারবেন। আটা, মশলা, চা, চিনি গুঁড়াচালসহ সব পণ্যেই এই নিয়মে ক্রয় করতে হবে।যাতে করে এই কার্যক্রমের আওতায় সর্বোচ্চ সংখ্যক ভোক্তা অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে পারে।

১০০টি স্থানের নাম ও লোকেশন পেতে স্ক্যান করুন