https://bangla-times.com/
ঢাকারবিবার , ১৭ মার্চ ২০২৪

লাগেজ স্ক্যানিং করতে চাওয়ায় কাস্টমস কর্মকর্তার ওপর হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক,ব্রাহ্মণবাড়িয়া
মার্চ ১৭, ২০২৪ ২:০৮ পূর্বাহ্ণ । ৩০ জন
Link Copied!

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় কাস্টমস কর্মকর্তাকে মারধরের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। মারধরের শিকার কাষ্টম্স এর সহকারি রাজস্ব কর্মকর্তা প্রধান মো. কামরুল পারভেজ বাদী হয়ে মামলা করেন। শনিবার দায়ের করা মামলায় চারজনের নাম উল্লেখ করা হয়।

এ ঘটনায় পুলিশ রাতেই হৃদয় (২৮) নামে একজনকে আটক করেছে। হৃদয় উপজেলার দক্ষিণ ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামের ইদন মিয়ার ছেলে। আখাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ নূরে আলম আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, একটি চক্র দীর্ঘ দিন ধরে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য থেকে আখাউড়া ইমিগ্রেশন দিয়ে ভারতীয় বিভিন্ন পণ্য বাংলাদেশে এনে শুল্ক ফাঁিক দিয়ে ব্যবসা করে যাচ্ছে। শুক্রবার বিকালে ভারত থেকে আসা একাধিক যাত্রী সাত-আটটি লাগেজে করে মালামাল নিয়ে আসে। ওই সব লাগেজ কৌশলে সিএনজি চালিত অটোরিকশায় উঠিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। বিষয়টি কাস্টমস সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বুঝতে পেরে ওই তাদেরকে লাগেজ স্ক্যানিং কক্ষে নিয়ে যেতে বলেন।

এতে ওই চক্রটি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এক পর্যায়ে জোর করে অটোরিকশা দ্রুত চলে যায়। এসময় কাস্টমস কর্মকর্তরা মোটর সাইকেল নিয়ে তাদের পিছু নেয়। সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা প্রধান মোঃ কামরুল পারভেজের নেতৃত্বে তিনজন কিছু দূর পরে বক্সের চড় মসজিদের সামনে সড়কে ওই অটোরিক্সাটির গতিরোধ করে। লাগেজগুলো চেকিং করার জন্য কাষ্টম্স এ ফেরত নিতে বলেন। এমন সময় পেছনে থেকে মোটর সাইকেলে এসে কয়েকজন যুবক কাষ্টম্স কর্মকর্তাদের উপর হামলা করে। এ সময় কাস্টমসের সিপাহি পদে কর্মরত মো. জুম্মন ও মো. ইমন মিয়াও আহত হন। এক পর্যায়ে ওই চক্রটি কাষ্টম্স কর্মকর্তাদের মোটর সাইকেলের চাবি ছিনিয়ে নিয়ে তাদেরকে জিম্মি করে ভারতীয় মালামাল ভর্তি অটোরিক্সাটি ছাড়িয়ে নেয়। পরে স্থানীয়রা লোকজন এগিলে এলে হামলাকারীরা দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে আহতদেরকে উদ্ধার করে আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে।

আহত সহকারি রাজস্ব কর্মকর্তা মোঃ কামরুল পারভেজ বলেন, ভারতীয় মালামাল স্ক্যানিং করতে কয়েকজনের উপর হামলা হয়। এ ঘটনায় রাতেই থানায় অভিযোগ দিয়েছি।

আখাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. নূরে আলম বলেন কাষ্টমস এর কর্মকর্তাদের ওপর হামলার ঘটনায় চারজনকে আসমাী করে মামলা দিয়েছে। রাতেই এজাহারনামীয় একজনকে আটক করা হয়েছে। বাকীদেরকে আটকে চেষ্টা চলছে।