https://bangla-times.com/
ঢাকাশুক্রবার , ১৭ মে ২০২৪
  • অন্যান্য

মশলায় অতিমাত্রায় কীটনাশক, হতে পারে ক্যানসার

বাংলা টাইমস্
মে ১৭, ২০২৪ ২:২৯ অপরাহ্ণ । ৭০ জন
Link Copied!

মশলায় অতিমাত্রায় কীটনাশক। এ নিয়ে চলছে নানা বিতর্ক। এবার ক্ষতিকারক রাসায়নিক ব্যবহারের প্রমাণ পাওয়ায় ভারতীয় মশলা প্রস্তুতকারক সংস্থা এভারেস্ট ও MDH-কে নিষিদ্ধ করেছে নেপাল। ক্ষতিকারক পদার্থ মেশানোর অভিযোগে ভারতে তৈরি মশলা নিষিদ্ধ করেছে সিঙ্গাপুর, হংকং। এদিকে, মশলা নিয়ে নতুন কড়াকড়ি চালু করেছে ব্রিটেনও।

মাত্রাতিরিক্ত ইথিলিন অক্সাইড জাতীয় কীটনাশক ব্যবহারের অভিযোগ এভারেস্ট ও MDH-এর বিরুদ্ধে। এই ইথিলিন অক্সাইডের অতিরিক্ত ব্যবহারের ফলে মানুষের হতে পারে ক্যানসার। ভারতীয় মশলা নিয়ে অভিযোগ ওঠার পর নড়েচড়ে বসে নেপাল।

সূত্রে খবর, নেপালের ফুড টেকনোলজি অ্যান্ড কোয়ালিটি কন্ট্রোল ডিপার্টমেন্টও ভারতীয় মশলার উপর পরীক্ষানিরিক্ষা চালাচ্ছিলো। তা থেকেই নাকি এভারেস্ট ও MDH-এর মশলায় ক্ষতিকারক উপদানের প্রমাণ পেয়েছে। আর এ কারণে নেপালে এই মশলার ব্যবহার, বিক্রি ও আমদানি নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

নেপালের ফুড টেকনোলজি অ্যান্ড কোয়ালিটি কন্ট্রোল ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র মোহন কৃষ্ণ মহার্জন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, এভারেস্ট এবং MDH কোম্পানির মশলা আমদানি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এমনকি বাজারে বিক্রিও নিষিদ্ধ করেছি। কেননা ওই মশলায় ক্ষতিকারক রাসায়নিক পাওয়া গেছে। এই দুটি বিশেষ ব্র্যান্ডের মশলা নিয়ে এখনও পরীক্ষা চলছে।

উল্লেখ্য, ভারতের মশলা প্রস্তুতকারক সংস্থা এভারেস্টের বিরুদ্ধে গুরুত্বর অভিযোগ আনে সিঙ্গাপুরের খাদ্যসুরক্ষা দপ্তর। সংস্থার জনপ্রিয় ‘ফিস কারি’ মশলায় অতি মাত্রায় কীটনাশক মেশানোর প্রমাণ মিলেছে। এ কারণে ভারত থেকে সেই মশলা আমদানি বন্ধ করে দেয় সিঙ্গাপুর সরকার। ক্ষতিকারক উপাদান মেশানোর অভিযোগ ওঠে MDH-এর বিরুদ্ধেও। এরপর থেকেই বিভিন্ন দেশ ভারতীয় মশলায় আলাদা করে নজরদারি শুরু করে।

এদিকে, বিভিন্ন দেশে অভিযোগ ওঠার পর নড়েচড়ে বসে ভার‍তও। মশলায় ‘বিষ’ ব্যবহার করা হচ্ছে কিনা তা যাচাই করতে নিখুঁত এক পদ্ধতি ব্যবহার করা হবে। এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে ‘ফুড সেফটি অ্যান্ড স্ট্যান্ডার্ডস অথোরিটি অফ ইন্ডিয়া’।