ঢাকা ০৯:৩৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বন্যা : মৌলভীবাজারে ৬৭ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৬:০২:৪৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই ২০২৪ ২২ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মৌলভীবাজারে টানা বন্যা ফলে সড়ক ও জনপথ বিভাগের ৩৭৬ কিলোমিটার সড়কের ২০ কিলোমিটার সড়ক ধস, পাহাড় আছড়ে ও জলে তলিয়ে গিয়ে প্রায় ৬৭ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

পাহাড়ি ঢল আর লাগাতার বৃষ্টিতে জেলার ১৭টি সড়কের সড়কের মধ্যে ৯টি সড়কের বিভিন্ন জায়গা তলিয়ে গেছে। আর নদ-নদীর পানি বৃদ্ধির প্রভাবে নিম্নাঞ্চলের সড়ক তলিয়ে যায়। আর এই তলিয়ে যাওয়া সড়ক দিয়ে ভারি যানবাহন চলাচল করায় আরো ধেবে যাচ্ছে সওজ’র বিভিন্ন এলাকার সড়কগুলো ।

জানা যায় যে, সড়ক বিভাগের অধীনে থাকা রাজনগর-কুলাউড়া,-জুড়ি-বড়লেখা বিয়ানীবাজার-শেওলা-চারখাই সড়কের ৭.৮শ কিলোমিটার, জুড়ী-লাঠিটিলা সড়কের ২.২শ কিলোমিটার, জুড়ী-ফুলতলা-বটুলী সড়কের ৫.৮শ কিলোমিটার, মৌলভীবাজার-শমসেরনগর-চাতলা চেকপোষ্ট সড়কের শুন্য দশমিক ৪শ কিলোমিটার, কুলাউড়া-শমসেরনগর-শ্রীমঙ্গল সড়কের শুণ্য দশমিক ২৫০ কিলোমিটার, শাহবাজপুর-জলঢুপ সড়কের শুণ্য দশমিক ৫শ কিলোমিটার, বড়লেখা-শাহবাজপুর-লাতু সড়কের শুণ্য দশমিক ২শ কিলোমিটার, হামরকোনা এন-২০৭ পুরাতন এলাইনমেন্ট সড়কের শুণ্য দশমিক ৮৫০ কিলোমিটার, জুড়ী (ক্লিবডন চা বাগান)-কুলাউড়া (গাজীপুর) সড়কের ২.৫শ কেলোমিটারসহ মোট ২০ দশমিক ৫শ কিলোমিটার সড়কের মারাত্মক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

এদিকে মৌলভীবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ কায়সার হামিদ বলেন, দীর্ঘস্থায়ী বন্যা ও পাহাড়ি ঢলে প্রতিনিয়ত চলাচলের অনুপযোগী হয়ে দাড়িয়েছে। জলের নিচে তলিয়ে যাওয়া সড়কের কি পরিমান ক্ষতি হয়েছে এখনো পরিপূর্ণভাবে বলা যাচ্ছে না। বন্যার পানি সম্পূর্ণ কমে গেলে পুরো ক্ষয়ক্ষতির পরিমান জানা যাবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

বন্যা : মৌলভীবাজারে ৬৭ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

আপডেট সময় : ০৬:০২:৪৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই ২০২৪

মৌলভীবাজারে টানা বন্যা ফলে সড়ক ও জনপথ বিভাগের ৩৭৬ কিলোমিটার সড়কের ২০ কিলোমিটার সড়ক ধস, পাহাড় আছড়ে ও জলে তলিয়ে গিয়ে প্রায় ৬৭ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

পাহাড়ি ঢল আর লাগাতার বৃষ্টিতে জেলার ১৭টি সড়কের সড়কের মধ্যে ৯টি সড়কের বিভিন্ন জায়গা তলিয়ে গেছে। আর নদ-নদীর পানি বৃদ্ধির প্রভাবে নিম্নাঞ্চলের সড়ক তলিয়ে যায়। আর এই তলিয়ে যাওয়া সড়ক দিয়ে ভারি যানবাহন চলাচল করায় আরো ধেবে যাচ্ছে সওজ’র বিভিন্ন এলাকার সড়কগুলো ।

জানা যায় যে, সড়ক বিভাগের অধীনে থাকা রাজনগর-কুলাউড়া,-জুড়ি-বড়লেখা বিয়ানীবাজার-শেওলা-চারখাই সড়কের ৭.৮শ কিলোমিটার, জুড়ী-লাঠিটিলা সড়কের ২.২শ কিলোমিটার, জুড়ী-ফুলতলা-বটুলী সড়কের ৫.৮শ কিলোমিটার, মৌলভীবাজার-শমসেরনগর-চাতলা চেকপোষ্ট সড়কের শুন্য দশমিক ৪শ কিলোমিটার, কুলাউড়া-শমসেরনগর-শ্রীমঙ্গল সড়কের শুণ্য দশমিক ২৫০ কিলোমিটার, শাহবাজপুর-জলঢুপ সড়কের শুণ্য দশমিক ৫শ কিলোমিটার, বড়লেখা-শাহবাজপুর-লাতু সড়কের শুণ্য দশমিক ২শ কিলোমিটার, হামরকোনা এন-২০৭ পুরাতন এলাইনমেন্ট সড়কের শুণ্য দশমিক ৮৫০ কিলোমিটার, জুড়ী (ক্লিবডন চা বাগান)-কুলাউড়া (গাজীপুর) সড়কের ২.৫শ কেলোমিটারসহ মোট ২০ দশমিক ৫শ কিলোমিটার সড়কের মারাত্মক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

এদিকে মৌলভীবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ কায়সার হামিদ বলেন, দীর্ঘস্থায়ী বন্যা ও পাহাড়ি ঢলে প্রতিনিয়ত চলাচলের অনুপযোগী হয়ে দাড়িয়েছে। জলের নিচে তলিয়ে যাওয়া সড়কের কি পরিমান ক্ষতি হয়েছে এখনো পরিপূর্ণভাবে বলা যাচ্ছে না। বন্যার পানি সম্পূর্ণ কমে গেলে পুরো ক্ষয়ক্ষতির পরিমান জানা যাবে।