ঢাকা ০৫:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পদ্মা লাইফ ইন্সুরেন্সের এমডিসহ ৫ জনের নামে মামলা

মো: রবিউল ইসলাম খান, লক্ষ্মীপুর
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৬:৫৫:৩১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪ ৩৩ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

লক্ষ্মীপুরে পদ্মা ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের বিরুদ্ধে মেয়াদ শেষ হলেও শত শত গ্রাহকের দাবী পরিশোধ করা নিয়ে টালবাহানা ও হয়রানি করার অভিযোগ উঠেছে। বাংলাদেশ বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ) হটলাইনে একাধিবার গ্রাহকেরা অভিযোগ দেওয়ার পরও সাড়া মিলেনি বলে অভিযোগ উঠেছে।

দীর্ঘ দিন ধরে টাকা না দিয়ে হয়রানি ও প্রতারণার অভিযোগে লক্ষ্মীপুর আদালতে মামলা করেছে এক গ্রাহক। ৩ জুলাই (বুধবার) দুপুরে সদর উপজেলার গর্ন্ধব্যপুর গ্রামের মৃত তোফায়েল আহমদ এর পুত্র মো: শাহজাহান বাদী হয়ে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে কোম্পানীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক, ডিএমডি, নোয়াখালী ও লক্ষ্মীপুর অফিসের ইনচার্জসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে এই মামলা দায়ের করেন।

আদালতের বিচারক আবু ইউসুফ মামলাটি আমলে নিয়ে জেলা গোয়েন্দা বিভাগের ওসিকে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেয়।

মামলার বাদী মো: শাহজাহান বলেন, আমাদের ১ লাখ জমা হওয়ার পর প্রায় ২ বছর শেষ হতে চলেছে এখনো আমার টাকা দেননি কোম্পানীর লোকজন। তাদের লক্ষ্মীপুর ও মান্দারী অফিস বন্ধ রয়েছে। কর্মকর্তা কর্মচারীদের মোবাইল বন্ধ ইতিমধ্যে কোম্পানীকে উকিল নোটিস দিয়েছি তবুও কোম্পানী টাকা দিচ্ছেনা বার বার সময় চেয়ে হয়রানি ও প্রতারণা করেছে আমিসহ অনেক সাথে বাধ্য হয়ে আদালতে মামলা করেছি আশা করি ন্যায় বিচার পাবো আদালতের কাছে।

লক্ষ্মীপুর জজকোর্টের আইনজীবী মহসিন কবির মুরাদ ও রেজাউল ইসলাম খান বলেন পদ্মা ইসলামী লাইফ ইন্সুরেন্স লক্ষ্মীপুরে অনেক গ্রাহকের মেয়াদ শেষেও টাকা দিচ্ছেনা। আমরা অনেক গ্রাহকের পক্ষ থেকে একাধিবার উকিল নোটিস করার পর তারা টাকা দেয়নি সময় চেয়ে বার বার প্রতারণার পর এক গ্রাহক মামলা করেছে আদালতে।

এদিকে, লক্ষ্মীপুর জেলা শহরের একতা সুপার মার্কেটের চতুর্থ তলায় বীমা কোম্পানীটির কার্যালয়ে গেলে দরজায় তালা ঝুলতে দেখা যায়। এসময় বাইরে কোম্পানীর নামে কোন সাইবোর্ড দেখা যায়নি।

তবে নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক অন্য একটি বীমা কোম্পানীর ম্যানেজার বলেন, পদ্মার কার্যালয় বাগবাড়ি এলাকায় ছিল। সেখান থেকে একতা সুপার মার্কেটে এসেছে। কিন্তু তাদের অফিস খুলতে কখনো দেখা যায়নি। দায়িত্বরত কর্মকর্তার মোবাইলফোনে একাধিকবার কল দিয়েও বক্তব্য জানা সাড়া পাওয়া যায়নি। একই কার্যালয়ের কর্মকর্তা মোস্তফা কামালের মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

পদ্মা লাইফ ইন্স্যুরেন্স লি: প্রধান কার্যালয়ের (এভিপি) আজঘর আলী জানান, গ্রাহকের মামলা করার বিষয়টি জানা নেই।
ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুর মোহাম্মদ ভূঁইয়ার সাথে অফিশিয়াল নাম্বারে যোগাযোগ করা হলে তার পিএস জানান তিনি মিটিং আছেন কথা বলতে পারবেন না।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

পদ্মা লাইফ ইন্সুরেন্সের এমডিসহ ৫ জনের নামে মামলা

সংবাদ প্রকাশের সময় : ০৬:৫৫:৩১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪

লক্ষ্মীপুরে পদ্মা ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের বিরুদ্ধে মেয়াদ শেষ হলেও শত শত গ্রাহকের দাবী পরিশোধ করা নিয়ে টালবাহানা ও হয়রানি করার অভিযোগ উঠেছে। বাংলাদেশ বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ) হটলাইনে একাধিবার গ্রাহকেরা অভিযোগ দেওয়ার পরও সাড়া মিলেনি বলে অভিযোগ উঠেছে।

দীর্ঘ দিন ধরে টাকা না দিয়ে হয়রানি ও প্রতারণার অভিযোগে লক্ষ্মীপুর আদালতে মামলা করেছে এক গ্রাহক। ৩ জুলাই (বুধবার) দুপুরে সদর উপজেলার গর্ন্ধব্যপুর গ্রামের মৃত তোফায়েল আহমদ এর পুত্র মো: শাহজাহান বাদী হয়ে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে কোম্পানীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক, ডিএমডি, নোয়াখালী ও লক্ষ্মীপুর অফিসের ইনচার্জসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে এই মামলা দায়ের করেন।

আদালতের বিচারক আবু ইউসুফ মামলাটি আমলে নিয়ে জেলা গোয়েন্দা বিভাগের ওসিকে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেয়।

মামলার বাদী মো: শাহজাহান বলেন, আমাদের ১ লাখ জমা হওয়ার পর প্রায় ২ বছর শেষ হতে চলেছে এখনো আমার টাকা দেননি কোম্পানীর লোকজন। তাদের লক্ষ্মীপুর ও মান্দারী অফিস বন্ধ রয়েছে। কর্মকর্তা কর্মচারীদের মোবাইল বন্ধ ইতিমধ্যে কোম্পানীকে উকিল নোটিস দিয়েছি তবুও কোম্পানী টাকা দিচ্ছেনা বার বার সময় চেয়ে হয়রানি ও প্রতারণা করেছে আমিসহ অনেক সাথে বাধ্য হয়ে আদালতে মামলা করেছি আশা করি ন্যায় বিচার পাবো আদালতের কাছে।

লক্ষ্মীপুর জজকোর্টের আইনজীবী মহসিন কবির মুরাদ ও রেজাউল ইসলাম খান বলেন পদ্মা ইসলামী লাইফ ইন্সুরেন্স লক্ষ্মীপুরে অনেক গ্রাহকের মেয়াদ শেষেও টাকা দিচ্ছেনা। আমরা অনেক গ্রাহকের পক্ষ থেকে একাধিবার উকিল নোটিস করার পর তারা টাকা দেয়নি সময় চেয়ে বার বার প্রতারণার পর এক গ্রাহক মামলা করেছে আদালতে।

এদিকে, লক্ষ্মীপুর জেলা শহরের একতা সুপার মার্কেটের চতুর্থ তলায় বীমা কোম্পানীটির কার্যালয়ে গেলে দরজায় তালা ঝুলতে দেখা যায়। এসময় বাইরে কোম্পানীর নামে কোন সাইবোর্ড দেখা যায়নি।

তবে নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক অন্য একটি বীমা কোম্পানীর ম্যানেজার বলেন, পদ্মার কার্যালয় বাগবাড়ি এলাকায় ছিল। সেখান থেকে একতা সুপার মার্কেটে এসেছে। কিন্তু তাদের অফিস খুলতে কখনো দেখা যায়নি। দায়িত্বরত কর্মকর্তার মোবাইলফোনে একাধিকবার কল দিয়েও বক্তব্য জানা সাড়া পাওয়া যায়নি। একই কার্যালয়ের কর্মকর্তা মোস্তফা কামালের মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

পদ্মা লাইফ ইন্স্যুরেন্স লি: প্রধান কার্যালয়ের (এভিপি) আজঘর আলী জানান, গ্রাহকের মামলা করার বিষয়টি জানা নেই।
ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুর মোহাম্মদ ভূঁইয়ার সাথে অফিশিয়াল নাম্বারে যোগাযোগ করা হলে তার পিএস জানান তিনি মিটিং আছেন কথা বলতে পারবেন না।