https://bangla-times.com/
ঢাকাশনিবার , ৯ মার্চ ২০২৪

তিস্তার পানির দাবিতে হাজার হাজার কৃষকের সমাবেশে

রংপুর প্রতিনিধি
মার্চ ৯, ২০২৪ ৮:০৫ অপরাহ্ণ । ৬০ জন
Link Copied!

তিস্তা নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা প্রদান করে নদীকে মেরে ফেলার হাত থেকে রক্ষা সহ ৮ দফা দাবিতে হাজার হাজার কৃষকের সমাবেশ পুলিশী বাঁধায় পন্ড হয়ে গেছে। পরে নগরীর তিন কিলোমিটার দুরে তিস্তা সমাবেশ করা হয়। কৃষক সমিতির উদ্যেগে বিশাল বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে রংপুর বিভাগের বিভিন্ন জেলা থেকে হাজার হাজার কৃষক যোগ দেয়।

এর আগে শনিবার (৯ মার্চ) দুপুর ১২ টার দিকে রংপুর নগরীর টাউন হল মাঠে কৃষক সমিতির উদ্যেগে রংপুর বিভাগের বিভিন্ন জেলা থেকে আগত কৃষকরা সমাবেশ করার প্রস্তুতি নিলে পুলিশ বাঁধা দেয় এ সময় পুলিশের সাথে কৃষক সমিতির উপদেষ্ঠা প্রবীন কৃষক নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহাদত হোসেনের সাথে পুলিশের কথা কাটাকাটি হয়। পুলিশ তাদের সেখানে সমাবেশ করতে দেবেনা বলে সাফ জানিয়ে দেয়। এ সময় কৃষক সমিতির সাধারন সম্পাদক সাজ্জাদ জহির চন্দন সেখানে অবস্থান রত সহকারী মেট্রোপলিটান পুলিশ কমিশনার আরিফ হোসেনকে অনুরোধ জানিয়ে বলেন তারা সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করবে কিন্তু ওই পুলিশ কর্মকর্তা উর্ধতন কতৃপক্ষের নির্দ্দেশনা রয়েছে জানিয়ে তাদের সমাবেশ করতে দেয়নি কৃষক সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক কাজী সাজ্জাদ জহির চন্দন অভিযোগ করেন।

এ সময় তিনি বলেন, আমরা পুলিশ কর্মকর্তাদের বলেছি রংপুর বিভাগের বিভিন্ন জেলা থেকে হাজার হাজার কৃষক এসেছে। তাদেরকে টাউন হল মাঠে সমাবেশ করতে না দেবার কোন কারন ছিলোনা। কিন্তু পুলিশ কোন অবস্থাতেই আমাদের সমাবেশ করতে দিলোনা। এর মাধ্যমে স্বাধীন দেশে শান্তিপুর্ন সমাবেশ করার গনতান্ত্রিক অধিকার হরন করা হলো বলে অভিযোগ করেন তিনি।

পরে কৃষকরা সমাবেশ করতে না পেরে আবারো পায়ে হেটে তিন কিলোমিটার দুরে নগরীর শাপলা চত্বরের কাছে সমাবেশ করে। সমাবেশে বক্তব্য দেন কৃষক সমিতির উপদেষ্ঠা বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহাদত হোসেনের সভাপতিতত্বে বক্তব্য দেন কৃষক সমিতির সাধারন সম্পাদক সাজ্জাদ জহির চন্দন, সাংগঠনিক সম্পাদক আবিদ হোসেন, কেন্দ্রীয় নেতা আলতাফ হোসেন, রাগীব আহসান মুন্না, জেলা সভাপতি আমজাদ হোসেন সরকার সাধারন সম্পাদক আলতাফ হোসেন, উপস্থিত ছিলেন গাইবান্ধা কৃষক সমিতির সভাপতি সাদেকুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় সদস্য মহসিন রেজা এ্যাডভোকেট, তাজুল ইসলাম, ঠাকুরগাও জেলা সভাপতি ইয়াকুব আলী, কুড়িগ্রাম জেলা সভাপতি নুর মোহাম্মদ, সাধারন সম্পাদক গোলাম মর্তুজা, লালমনিরহাট সভাপতি মধুসুধন রায় সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

সমাবেশে অভিযোগ করা হয় প্রমত্তা তিস্তা নদী শুস্ক মৌসুমে ভারত তাদের উজানে বাঁধ নির্মান করে পানির প্রবাহ আটকে রাখার কারনে তিস্তা নদী এখন মরা খালে পরিনত হয়েছে। ফলে তিস্তা নদী বেষ্টিত এলাকার কৃষকরা জমিতে চাষাবাদ করতে পারছেনা। অন্যদিকে বর্ষা মৌসুমে ভারত স্বাভাবিক পানি প্রবাহের চেয়ে অনেক গুন পানি ছেড়ে দেয়ায় উত্তরাঞ্চলের বিস্তৃর্ন এলাকা তলিয়ে যায়। বার বার বলা সত্বেও ভারত তিস্তা নদীর ন্যায্য হিস্যা প্রদান করছেনা। নেস কারনে ৮ দফা দাবিতে রংপুর বিভাগের কৃষকরা সমাবেশ করছে। ৮ দফা দাবি হচ্ছে সারাবছর তিস্তা নদীর স্বাভাবিক পানি প্রবাহ নিশ্চিত করা, ভারতে সাথে দ্রæত পানি চুক্তি করে পানির ন্যায্য হিস্যা আদায় করা, তিস্তা নদীকে মেরে ফেলার হাত থেকে রক্ষা করা, তিস্তা সহ অন্যান্য নদী ,খাল বিল জলাশয় পরিকল্পিত ভাবে খনন করে তলদেশের নাব্যতা বজায় রাখার উদ্যেগ গ্রহন, দেশ প্রেমিক নদী গবেষকদের পরামর্শের ভিত্তিতে তিস্তা নদীর পানি সংরক্ষনের ব্যবস্থা গ্রহন, নদী ভাঙ্গনে কৃষকদের ফসল , গবাদিপশু, ঘরবাড়ি রক্ষার জন্য পরিকল্পিত স্তায়ী বাঁধ নির্মান , নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারদের ক্ষতি পুরন প্রদান, জেগে ওঠা জমি প্রকৃত মালিকদের মাঝে মালিকানা ফিরিয়ে দেয়া।

তাদের দাবি মেনে নেয়া না হলে কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি দেয়া হবে বলে ঘোষনা দেয়া হয়। । সেই সাথে সমাবেশ করতে পুলিশী বাঁধার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়। এ ব্যাপারে দায়িত্বরত রংপুর মেট্রোপলিট পুলিশের সহ কারী কমিশনার আরিফ হোসেন বলেন তিনি কোন কথা বলতে চাননা নির্দ্দেশনা অনুয়ায়ী তাদের সমাবেশ করতে নিষেধ করা হয়েছে।