https://bangla-times.com/
ঢাকামঙ্গলবার , ১১ জুন ২০২৪

জমির দলিলসহ বাড়ি পেলেন আরও ১৮ হাজার পরিবার

নিজস্ব প্রতিবেদক
জুন ১১, ২০২৪ ১:২০ অপরাহ্ণ । ৩২ জন
Link Copied!

জমির দলিলসহ বাড়ি পেলেন আরও ১৮ হাজার ৫৬৬ গৃহহীন পরিবার। এর মাধ্যমে কক্সবাজারসহ ৫৮টি জেলা ভূমি ও গৃহহীনমুক্ত হলো। মঙ্গলবার (১১ জুন) বেলা ১১টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ, কক্সবাজারের ঈদগাঁও এবং ভোলার চরফ্যাশনের সাথে সংযুক্ত হয়ে জমির মালিকানা দলিলসহ বাড়ি হস্তান্তর কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ সময় শেখ হাসিনা বলেন, ঘূর্ণিঝড় রেমালে যাদের ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, ভেঙে গেছে, তাদের নতুন করে ঘর করে দেয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী সবাইকে বিদ্যুৎ ও পানি ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, জাতির জনকে হত্যা করার পর অবৈধভাবে ক্ষমতার দখলকারীরা এদেশের মানুষের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে ব্যস্ত ছিলো। ২১ বছর পর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে জনগণের সেবক হিসেবে যাত্রা শুরু করে। তখন থেকেই ভূমিহীন মানুষদের জন্য আমরা উদ্যোগ নিয়েছিলাম।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু সারাজীবন মানুষের অধিকার আদায়ে সংগ্রাম করেছেন । তার আদর্শের ধারাবাহিকতায় ভূমিহীনদের আবাসনের ব্যবস্থা করছে সরকার। আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরের মাধ্যমে সবার ভাগ্য বদলে গেছে। ছিন্নমূল মানুষের মনে আত্মবিশ্বাস ও আত্মমর্যাদা ফিরে এসেছে।

শেখ হাসিনা বলেন, ২০০৭ সালের ১৬ জুলাই মিথ্যা মামলায় আমাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিলো। ১১ জুন বন্দীখানা থেকে মুক্তি পাই। আমাদের নেতাকর্মী, সহযোগী সংগঠন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-ছাত্র, সাধারণ মানুষ, যারা এর প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন তাদের সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানাই। জাতির কাছে আমি কৃতজ্ঞ।

এর আগে সারাদেশে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের প্রথম ধাপে ৬৩ হাজার ৯৯৯টি, দ্বিতীয় ধাপে ৫৩ হাজার ৩৩০টি, তৃতীয় ধাপে ৫৯ হাজার ১৩৩টি এবং চতুর্থ ধাপে ৩৯ হাজার ৩৬৫টি বাড়ি বিতরণ করেন প্রধানমন্ত্রী।

এই প্রকল্পের আওতায় ভূমি ও গৃহহীন প্রতিটি পরিবারকে ২ দশমিক ৫ শতাংশ জমির মালিকানা দিয়ে একটি আধা-পাকা বাড়ি দেয়া হচ্ছে। যা স্বামী-স্ত্রী উভয়ের হবে। প্রতিটি বাড়িতে দুটি শোবার ঘর, একটি রান্নাঘর, একটি টয়লেট এবং বারান্দা রয়েছে।