ঢাকা ০৪:৫৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুড়ালের কোপে কৃষকের মৃত্যু

নোয়াখালী প্রতিনিধি
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ০১:১৯:০২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই ২০২৪ ১৩ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নোয়াখালীর সদর উপজেলার আন্ডারচর গ্রামে প্রতিবেশীর কুড়ালের কোপে আহত মো.মহিন উদ্দিন (৩৮) নামের এক কৃষক মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) সকাল সোয়া ৯টায় তাকে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

এর আগে, গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। অপরদিকে, গত মাসের ১৯ জুন রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার আন্ডারচর গ্রামের বশির উল্যাহ বেপারী বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মহিন উদ্দিন পেশায় একজন কৃষক এবং চার সন্তানের জনক। তিনি উপজেলার আন্ডারচর গ্রামের বশির উল্যাহ বেপারী বাড়ির মো.বশির উল্যার ছেলে।

নিহতের বড় ভাই মো.মোছলে উদ্দিন বলেন, বাড়ির ৪০০ ফুট উত্তরে ২৪ শতাংশ জায়গা নিয়ে প্রবিবেশী আবুল বাশারের পরিবারের সাথে বিরোধ চলছিলো। গত মাসের ১৯ জুন গভীর রাতে বাশার তার আরও দুই ভাই আব্বাস ও মামুনুর রশীদের নেতৃত্বে ২৫-৩০জন আমাদের বিরোধপূর্ণ জায়গায় ঘর নির্মাণ করে ফেলে। বিষয়টি জানতে পেরে সাথে সাথে আমি সুধারামা থানার পুলিশকে মুঠোফোনে বিষয়টি অবহিত করি। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে অভিযান চালায়।

তিনি আরও বলেন, পুলিশকে খবর দেয়ায় বাশার ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওই দিন রাতে আড়াইটার দিকে আমাদের বসত বাড়িতে হামলা চালায়। হামলায় আমার বাবাসহ পরিবারের সাতজন গুরুত্বর আহত হয়। এরমধ্যে মহিন উদ্দিনকে চাইনিজ কুড়াল দিয়ে মাথায় কুপিয়ে গুরুত্বর জখম করা হয়। পরে তাকে প্রথমে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার (২ জুলাই) রাত সাড়ে ১১টার দিকে তার মৃত্যু হয়। হামলার ঘটনায় আমরা ১৯জনকে আসামি করে সুধারাম থানায় একটি মামলা দায়ের করি।

সুধারাম থানার ওসি মীর জাহেদুল হক রনি বলেন, জায়গা নিয়ে বিরোধের জেরে এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ১৯ জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। এরমধ্যে কয়েকজন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

কুড়ালের কোপে কৃষকের মৃত্যু

সংবাদ প্রকাশের সময় : ০১:১৯:০২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই ২০২৪

নোয়াখালীর সদর উপজেলার আন্ডারচর গ্রামে প্রতিবেশীর কুড়ালের কোপে আহত মো.মহিন উদ্দিন (৩৮) নামের এক কৃষক মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) সকাল সোয়া ৯টায় তাকে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

এর আগে, গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। অপরদিকে, গত মাসের ১৯ জুন রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার আন্ডারচর গ্রামের বশির উল্যাহ বেপারী বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মহিন উদ্দিন পেশায় একজন কৃষক এবং চার সন্তানের জনক। তিনি উপজেলার আন্ডারচর গ্রামের বশির উল্যাহ বেপারী বাড়ির মো.বশির উল্যার ছেলে।

নিহতের বড় ভাই মো.মোছলে উদ্দিন বলেন, বাড়ির ৪০০ ফুট উত্তরে ২৪ শতাংশ জায়গা নিয়ে প্রবিবেশী আবুল বাশারের পরিবারের সাথে বিরোধ চলছিলো। গত মাসের ১৯ জুন গভীর রাতে বাশার তার আরও দুই ভাই আব্বাস ও মামুনুর রশীদের নেতৃত্বে ২৫-৩০জন আমাদের বিরোধপূর্ণ জায়গায় ঘর নির্মাণ করে ফেলে। বিষয়টি জানতে পেরে সাথে সাথে আমি সুধারামা থানার পুলিশকে মুঠোফোনে বিষয়টি অবহিত করি। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে অভিযান চালায়।

তিনি আরও বলেন, পুলিশকে খবর দেয়ায় বাশার ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওই দিন রাতে আড়াইটার দিকে আমাদের বসত বাড়িতে হামলা চালায়। হামলায় আমার বাবাসহ পরিবারের সাতজন গুরুত্বর আহত হয়। এরমধ্যে মহিন উদ্দিনকে চাইনিজ কুড়াল দিয়ে মাথায় কুপিয়ে গুরুত্বর জখম করা হয়। পরে তাকে প্রথমে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার (২ জুলাই) রাত সাড়ে ১১টার দিকে তার মৃত্যু হয়। হামলার ঘটনায় আমরা ১৯জনকে আসামি করে সুধারাম থানায় একটি মামলা দায়ের করি।

সুধারাম থানার ওসি মীর জাহেদুল হক রনি বলেন, জায়গা নিয়ে বিরোধের জেরে এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ১৯ জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। এরমধ্যে কয়েকজন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।