https://bangla-times.com/
ঢাকাসোমবার , ৮ এপ্রিল ২০২৪
  • অন্যান্য

কিশোর অপরাধীদের মোকাবেলায় বিশেষ নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রীর

দেবব্রত দত্ত
এপ্রিল ৮, ২০২৪ ৮:১১ অপরাহ্ণ । ৯০ জন
Link Copied!

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কিশোর গ্যাং মোকাবেলায় বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছে। কিশোর অপরাধীদের মোকাবেলায় ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি নিতে বলেছেন তিনি । আর এই কাজে শিক্ষক, অভিভাবক এবং জনপ্রতিনিধিদের যুক্ত হতে বলেছেন।

সোমবার( ৮ এপ্রিল) বিকেলে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মাহবুব হোসেন মন্ত্রিসভা বৈঠকের সিদ্ধান্ত জানাতে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন ।

মন্ত্রিসভার বৈঠকে অনির্ধারিত আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী এই নির্দেশ দেন । প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে তার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয় মন্ত্রিসভার বৈঠক ।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কথা জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে এদের( কিশোর অপরাধী) ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে বিশেষ দৃষ্টি দিতে হবে । তাদের যেন দীর্ঘ মেয়াদে অপরাধী বানিয়ে না রেখে সংশোধনের সুযোগ যেন থাকে ।

বর্তমানে তিনটি শিশু উন্নয়ন কেন্দ্র( গাজীপুর, টঙ্গী ও যশোর) রয়েছে জানিয়ে মাহবুব হোসেন বলেন, এই সংখ্যাটি বাড়াতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী । এ ছাড়াও আরও সুযোগ- সুবিধা বাড়াতে বলেছেন, যাতে তারা( কিশোর অপরাধী) সংশোধন হতে পারে ।


সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, আইন তার স্বাভাবিক গতিতে চলবে । কিন্তু এদের( কিশোর অপরাধী) যখন মোকাবেলা করা হবে তখন যেন মনে রাখা হয়, তাকে যেন আরও অপরাধী না বানিয়ে ফেলা হয় । সংশোধন করার একটি পরিবেশ যেন থাকে ।

মাহবুব হোসেন বলেন, মন্ত্রিসভায় ‘ জাতীয় লজিস্টিক্স নীতি ২০২৪ ’ এর খসড়ার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে । পণ্য পরিবহনে খরচ ও সময় কমানো এবং সরবরাহ স্বাভাবিক রাখাসহ বিভিন্ন উদ্দেশ্যে নিয়ে দেশে এই নীতিমালা করেছে সরকার ।

তিনি বলেন, আমদানি- রপ্তানিসহ সামগ্রিক বাণিজ্যে লজিস্টিক্স সহায়তার গুরুত্ব অপরিসীম । মোট খরচের একটি অংশ এখানে হয় । তাই নির্ধারিত সময় বা স্বল্পতম সময়, স্বল্পমতো ব্যয়, পণ্য সরবরাহ ব্যবস্থা যাতে স্বাভাবিক হয় সেটি নিশ্চিত করার জন্য সব মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কার্যক্রম গ্রহণ করতে হবে । কী কী কার্যক্রম গ্রহণ করতে হবে তার দিক নির্দেশনা রয়েছে নতুন এই নীতিমালায় ।

খসড়া নীতি অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে ১৬ সদস্যের একটি কাউন্সিল থাকবে । তাতে আটজন মন্ত্রী ছাড়াও বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিরা থাকবেন । এই কাউন্সিল সামগ্রিক দিক নির্দেশনা দেবেন ।