https://bangla-times.com/
ঢাকাবৃহস্পতিবার , ২৩ মে ২০২৪
  • অন্যান্য

এমপি আনোয়ারুল খুন/ হত্যার পর মাংসে হলুদ মাখানো হয়, ছিলেন এক নারী!

বিশেষ প্রতিবেদক
মে ২৩, ২০২৪ ৭:৪৫ অপরাহ্ণ । ৪৯ জন
Link Copied!

কলকাতা চিকিৎসা করাতে গিয়ে হত্যার শিকার এমপি আনোয়ারুল আজিমের হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে একজনকে গ্রেফতার করল কলকাতার সিআইডি। সিয়াম নামে ওই যুবক বাংলাদেশি। এমপি আনোয়ারুল হত্যায় জড়িত ছিলেন বলে দাবি তদন্তকারীরাদের। ওই দিন যে অ্যাপ ক্যাপ ব্যবহার করা হয়েছিলো তার চালককে জেরা করে অভিযুক্তের সন্ধান পাওয়া গেছে বলে সূত্রের খবর।

দেশটির সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, চলতি মাসের ১৩ মে কলকাতার নিউ টাউনের সঞ্জীবা গার্ডেন্সের ফ্ল্যাটে হত্যা করা হয় ঝিনাইদহ-৪ আসনের এমপি আনোয়ারুলকে। হত্যার পর দেহ টুকরো টুকরো করে ব্যাগে ভরে আততায়ীরা। পথে পুলিশ ধরলে যাতে রান্না করার উদ্দেশ্যে মাংস নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে দাবি করা যায় সেজন্যই কাটা দেহাংশে হলুদ মাখায় আততায়ীরা। এরপর একটি অ্যাপ ক্যাবে ব্যাগগুলো তোলা হয়। পথে নজরুল তীর্থের সামনে দাঁড়িয়ে দেহাংশ কোথায় নিয়ে যাওয়া হবে এসব আলোচনা করে তারা। আর সেই কথা শোনেন ওই ক্যাবের চালক জুবেইর। এরপর অ্যাক্সিস মলের সামনে আততায়ীদের নামিয়ে দিয়ে যান ক্যাব চালক।

বুধবার (২২ মে) ক্যাব চালককে আটক করে জেরা করেন কলকাতা সিআইডির গোয়েন্দারা। তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতেই সিয়ামকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার ব্যক্তি দেহাংশ ফেলার দায়িত্বে ছিলো বলে প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে।

হত্যার আগে ১৩ মে যে গাড়িতে এমপি আনোয়ারুলকে ওই আবাসনে নিয়ে যাওয়া হয়েছিলো ও যে গাড়িতে তার দেহাংশ ফেলা হয় সেই দু’টি গাড়িই আটক করেছে পুলিশ। গাড়িগুলোর ফরেন্সিক পরীক্ষা করা হচ্ছে।

এদিকে, এ ঘটনায় উঠে এসেছে হানি ট্রাপের তত্ত্ব। জানা গেছে, এমপি আনোয়ারুলকে নিউ টাউনের ওই ফ্ল্যাটে নিয়ে যেতে আগে থেকেই সেখানে তার পরিচিত এক নারীকে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছিলো। সেই নারীই এমপি আনোয়ারুলকে ফ্ল্যাটের দরজা খুলে দেন। তবে হত্যার সময় সেখানে ছিলেন না তিনি। হত্যার পর দেহ লোপাটের কাজে ছিলেন ওই নারী।