https://bangla-times.com/
ঢাকাবৃহস্পতিবার , ২৫ এপ্রিল ২০২৪

উপজেলা নির্বাচন/ কেন্দ্রীয় নেতাদের সমর্থন পেতে দৌড়ঝাঁপ

সোহরাব হোসেনে সৌরভ, রাজশাহী
এপ্রিল ২৫, ২০২৪ ৭:৫৭ অপরাহ্ণ । ৩৫ জন
Link Copied!

চলতি বছরের ৫ জুন শেষ ধাপে অনুষ্ঠিত হবে ৫৫ টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। এরই মধ্যে নির্বাচনের তফসীল ঘোষণা করা হয়েছে। এবারের নির্বাচনকে ঘিরে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ থেকে নেই দলীয় প্রতীক কিংবা কোন নেতা কর্তৃক পছন্দের প্রার্থী সিলেকশন। তারপরও বাঘার স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা-নেত্রীরা একক প্রার্থীতা পেতে ছুটছেন জেলা, মহানগর ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের দ্বারে দ্বারে।

বাঘা উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা জানান, এবার বড় দুই বিরোধী রাজনৈতিক দল জামাত-বিএনপি উপজেলা নির্বাচনে অংশ গ্রহন না করায় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সিদ্ধান্ত যে কেউ প্রার্থী হতে পারবে। এদিক থেকে বাঘায় চেয়াম্যান পদে প্রার্থী রয়েছেন প্রায় হাফ ডজন নেতা।

এরমধ্যে প্রচারনায় এগিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান ও রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক এড: লায়েব উদ্দিন লাভলু , সাবেক বাঘা পৌর সভার প্যানেল মেয়র ও যুবলীগ নেতা শাহিনুর রহমান পিন্টু, বাঘা উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল,এবং জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি রোকনুজ্জামান রিন্টু। অপরদিকে, পুরুষ ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী রয়েছেন প্রায় ডজন খানেক নেতা-কর্মী।

দলীয় নেতাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে এ উপজেলায় যিনি ভোট করেছেন তার সমর্থীতরা এবারের উপজেলা নির্বাচনেও একই ভাবে লড়বেন। এ জন্য তারা ইতোমধ্যে তিনটি পদে প্রার্থী চুড়ান্ত করে ফেলেছেন। অপরদিকে, যিনি নির্বাচিত সংসদ সদস্য তার পক্ষের একাধিক নেতারা মাঠে প্রচারনায় রয়েছেন। তারা এখনো প্রার্থী চুড়ান্ত করতে পারেননি। তবে একক ভাবে মৌন সমর্থন পাওয়ার জন্য আলীগের একাধিক নেতা ঢাকায় দৌড়-ঝাপ করছেন বলে সূত্র নিশ্চিত করেন।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, আগামী ৫ জুন শেষ ধাপে অনুষ্ঠিত ৫৫ টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের যে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে সেখানে উল্লেখ রয়েছে রিটার্নিং ও সহকারী রিটার্নিং অফিসারের নিকট হতে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের মনোনয় দাখিলের শেষ তারিখ ৯ মে, মনোনয়ন বাছাই ১২ মে, মনোনয়ন বাছাই-এ ভুল ত্রুটি বের হলে আপিল করার তারিখ ১৩ থেকে ১৫ মে, আপিল নিৎপত্তি ১৬ থেকে ১৮ মে, প্রার্থীতা প্রত্যাহার ১৯ মে, প্রতিক বরাদ্দ ২০ মে এবং সর্বশেষ ভোট গ্রহন ৫ জুন।