ঢাকা ০৩:৩৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অনুমোদন ছাড়াই কাটা হচ্ছে সড়কের দুই পাশের গাছ

বগুড়া প্রতিনিধি
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : ১২:৩৩:৩৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪ ৩১ বার পড়া হয়েছে
বাংলা টাইমস অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

বগুড়ার আদমদীঘির কদমা মৎস্য খামার এলাকায় ব্রিজ সংলগ্ন সড়কের দুই পাশের সরকারি গাছ অনুমতি ছাড়াই কাটা হচ্ছে। গত কয়েক দিনে প্রায় ১২টি গাছ কাটা হয়েছে। খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার (২০ জুন) রাতে বগুড়া সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী সুলতানা খানমের নেতৃত্বে কেটে রাখা গাছগুলো জব্দ করা হয়েছে

জানা গেছে, ১৬ বছর আগে উপজেলার দমদমা গ্রামের ২৮ জন যুবক মিলে সড়কের দুই পাশে দেড় শতাধীক ইউক্যালেপ্টাস গাছ রোপন করেন। তারা নিজ উদ্যোগে গাছগুলো পরিচর্যা করেন। কাউকে না জানিয়েই হঠাৎ গত বুধবার সকাল থেকে আব্দুস সালাম গাছগুলো কাটতে শুরু করেন। খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার (২০ জুন) বিকালে পুলিশ এসে অবসরপ্রাপ্ত ওই শিক্ষক ও কাঠ ব্যবসায়ীকে গাছ কাটতে নিষেধ করেন।

দমদমা গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আতোয়ার রহমান এ বিষয়ে বলেন, গাছগুলো মহল্লার ২৮ জন যুবক রোপন করে। কিন্তু তাদের না জানিয়েই গাছগুলো কাটা হয়। পরে সালামের সাথে কথা বলে জানতে পারি দমদমা গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক খায়রুল ইসলাম তাকে গাছগুলো কাটতে বলেছেন। অনুমোদন ছাড়াই বৃক্ষরোপনকারিদের না জানিয়ে তিনি গাছগুলো কাটা অন্যায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আব্দুস সালাম জানান, তিনি গাছগুলো কিনে নিয়েছেন। গাছগুলো কাটতে দমদমা পূর্বপাড়া মসজিদের নামে একটি দরখাস্ত দেয়া হয়েছে। এরপর সড়ক ও জনপথ বিভাগ থেকে তাদের একটি কাগজ দিয়েছে।

আদমদীঘি থানার উপ পরিদর্শক মানিক কুমার বলেন, অনুমোদনের কোনো কাগজ আব্দুস সালাম দেখাতে পারেননি। গাছ কাটতে নিষেধ করা হয়েছে।

আদমদীঘি উপজেলা বন কর্মকর্তা মতিয়ার রহমান এবং ইউএনও জানান, বিস্তারিত জেনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বগুড়া সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী সুলতানা খানম জানান, সড়কের গাছ কাটতে কাউকে অনুমোদন দেয়া হয়নি। অবৈধভাবে গাছ কাটায় ১০টি গাছ জব্দ করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

অনুমোদন ছাড়াই কাটা হচ্ছে সড়কের দুই পাশের গাছ

সংবাদ প্রকাশের সময় : ১২:৩৩:৩৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪

বগুড়ার আদমদীঘির কদমা মৎস্য খামার এলাকায় ব্রিজ সংলগ্ন সড়কের দুই পাশের সরকারি গাছ অনুমতি ছাড়াই কাটা হচ্ছে। গত কয়েক দিনে প্রায় ১২টি গাছ কাটা হয়েছে। খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার (২০ জুন) রাতে বগুড়া সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী সুলতানা খানমের নেতৃত্বে কেটে রাখা গাছগুলো জব্দ করা হয়েছে

জানা গেছে, ১৬ বছর আগে উপজেলার দমদমা গ্রামের ২৮ জন যুবক মিলে সড়কের দুই পাশে দেড় শতাধীক ইউক্যালেপ্টাস গাছ রোপন করেন। তারা নিজ উদ্যোগে গাছগুলো পরিচর্যা করেন। কাউকে না জানিয়েই হঠাৎ গত বুধবার সকাল থেকে আব্দুস সালাম গাছগুলো কাটতে শুরু করেন। খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার (২০ জুন) বিকালে পুলিশ এসে অবসরপ্রাপ্ত ওই শিক্ষক ও কাঠ ব্যবসায়ীকে গাছ কাটতে নিষেধ করেন।

দমদমা গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আতোয়ার রহমান এ বিষয়ে বলেন, গাছগুলো মহল্লার ২৮ জন যুবক রোপন করে। কিন্তু তাদের না জানিয়েই গাছগুলো কাটা হয়। পরে সালামের সাথে কথা বলে জানতে পারি দমদমা গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক খায়রুল ইসলাম তাকে গাছগুলো কাটতে বলেছেন। অনুমোদন ছাড়াই বৃক্ষরোপনকারিদের না জানিয়ে তিনি গাছগুলো কাটা অন্যায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আব্দুস সালাম জানান, তিনি গাছগুলো কিনে নিয়েছেন। গাছগুলো কাটতে দমদমা পূর্বপাড়া মসজিদের নামে একটি দরখাস্ত দেয়া হয়েছে। এরপর সড়ক ও জনপথ বিভাগ থেকে তাদের একটি কাগজ দিয়েছে।

আদমদীঘি থানার উপ পরিদর্শক মানিক কুমার বলেন, অনুমোদনের কোনো কাগজ আব্দুস সালাম দেখাতে পারেননি। গাছ কাটতে নিষেধ করা হয়েছে।

আদমদীঘি উপজেলা বন কর্মকর্তা মতিয়ার রহমান এবং ইউএনও জানান, বিস্তারিত জেনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বগুড়া সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী সুলতানা খানম জানান, সড়কের গাছ কাটতে কাউকে অনুমোদন দেয়া হয়নি। অবৈধভাবে গাছ কাটায় ১০টি গাছ জব্দ করা হয়েছে।