https://bangla-times.com/
ঢাকাশনিবার , ২ মার্চ ২০২৪
  • অন্যান্য

অগ্নি নিরাপত্তা নিশ্চিতে আরও জোরালোভাবে কাজ করবে এফবিসিসিআই

নিজস্ব প্রতিবেদক
মার্চ ২, ২০২৪ ৬:১৪ অপরাহ্ণ । ১০৭ জন
Link Copied!

রাজধানীর বেইলি রোডে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ভবন পরিদর্শন করেছে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন দি ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফবিসিসিআই)। সংগঠনটির সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. আমিন হেলালীর নেতৃত্বে শনিবার (২ মার্চ) বেলা ১১টায় বেইলি রোডস্থ ওই ভবন পরিদর্শন করেন ব্যবসায়ী নেতারা।

এসময় দেশের বাণিজ্যিক ভবনগুলোতে অগ্নি সুরক্ষা নিশ্চিতে সরকারের সঙ্গে আরও জোরালো ভাবে কাজ করার কথা জানান এফবিসিসিআই নেতৃবৃন্দ।

পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এফবিসিসিআই’র সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. আমিন হেলালী বলেন, বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে অনেক দূর অগ্রসর হয়েছে। যেখানে বেসরকারি খাতের অবদান উল্লেখযোগ্য। তবে ব্যবসা-বাণিজ্য এবং শিল্প প্রতিষ্ঠানে শতভাগ কমপ্লায়েন্স বাস্তবায়নে আমরা এখনও পিছিয়ে রয়েছি। বেইলি রোডে ভবনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় একে অন্যকে দোষারোপ না করে বাণিজ্যিক ভবনসহ সব ধরনের স্থাপনায় নিরাপত্তা ও সুরক্ষা বাস্তবায়নে সরকার এবং বেসরকারি খাতকে সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে উল্লেখ করেন তিনি।

মো. আমিন হেলালী আরও বলেন, এই দুর্ঘটনা যাদের অবহেলায় হয়েছে তাদের প্রত্যেককে শাস্তির আওতায় আনতে হবে। যাদের অবহেলার কারণে এতগুলো মানুষের প্রাণ গেল তাদের যথাযথ শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। এই দুর্ঘটনার সাথে জড়িতরা ব্যবসায়ী হোক কিংবা ভবনের কমপ্লায়েন্স নিশ্চিত ও তদারকির সাথে সংশ্লিষ্ট সরকারি প্রতিষ্ঠান হোক; প্রকৃত অর্থে যাদের অবহেলায় ও উদাসীনতার কারণে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে তাদের প্রত্যেককে কঠোর শাস্তির আওতায় নিয়ে আসতে হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি। পাশাপাশি ভবনের কমপ্লায়েন্সের বিষয়গুলো তদারকির সাথে সংশ্লিষ্টদের আরও দায়িত্বশীল হওয়ার আহ্বান জানান এফবিসিসিআই সিনিয়র সহ-সভাপতি।

ভবিষ্যতে যেন মানব সৃষ্ট সংকটে কোন মর্মান্তিক দুর্ঘটনা না ঘটে সে বিষয়ে এখন থেকেই সংশ্লিষ্ট সবাইকে সজাগ হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

একের পর এক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কেউ কেউ ব্যবসায়ীদের দোষারোপ করছে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে এফবিসিসিআই’র সিনিয়র সহ-সভাপতি বলেন, বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডের পূর্বে ভবনটিকে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করে নোটিশ দেওয়া হলেও পরবর্তীতে এই বিষয়ে কোন তদারকি করা হয়নি। দুর্ঘটনার আগেই এখানে আইনি পদক্ষেপ নেয়ার সুযোগ ছিল। প্রকৃত অর্থে কোন ব্যবসায়ী যদি দোষী প্রমাণিত হয়, তাহলে অবশ্যই তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাণিজ্যিক ভবনগুলোতে কমপ্লায়েন্সের সার্টিফিকেট দেওয়ার পূর্বে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে ভবনগুলো ভালোভাবে বিশ্লেষণ ও পরীক্ষা করে সার্টিফিকেট প্রদানের আহ্বান জানান তিনি। যে-সব জায়গায় দুর্বলতা আছে সেগুলোকে চিহ্নিত করে পরবর্তীতে যেন একই ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয় সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে আহ্বান জানিয়েছেন এফবিসিসিআই’র সিনিয়র সহ-সভাপতি।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে এফবিসিসিআই’র সহ-সভাপতি ও এফবিসিসিআই ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আনোয়ার সাদাত সরকার, এফবিসিসিআই সেফটি কাউন্সিলের উপদেষ্টা বিগ্রেডিয়ার জেনারেল (অব.) আবু নাঈম মো. শহিদ উল্লাহ, এফবিসিসিআই’র পরিচালকবৃন্দ, ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।