https://bangla-times.com/
ঢাকামঙ্গলবার , ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

লিভ ইন সম্পর্কে রেজিস্ট্রি, না করালে ৬ মাসের জেল

বাংলা টাইমস্
ফেব্রুয়ারি ৬, ২০২৪ ১০:২০ অপরাহ্ণ । ৬৭ জন
Link Copied!

এবার সরকারিভাবে নথিভুক্ত করতে হবে লিভ ইন সম্পর্ক। না হলে ছমাসের কারাদণ্ড। সঙ্গে গুণতে হবে মোটা অঙ্কের জরিমানাও। লিভ ইন সম্পর্ক নিয়ে একাধিক নিয়মের উল্লেখ রয়েছে উত্তরাখণ্ডে পেশ হওয়া অভিন্ন দেওয়ানি বিধি বিলে। বিয়ে, বিবাহ বিচ্ছেদ, সম্পত্তির উত্তরাধিকারের মতো বিষয় নিয়েও নতুন রকমের নিয়মের উল্লেখ রয়েছে নয়া বিলে।

সবচেয়ে বেশি আলোচিত হচ্ছে লিভ ইন সম্পর্কের নিয়মাবলি। বিল অনুযায়ী, সরকারিভাবে নথিভুক্ত করাতে হবে লিভ ইন সম্পর্ক। সঙ্গীদের মধ্যে কারোওর বয়স ২১ বছরের কম হলে তাঁর বাবা-মার অনুমতি লাগবে রেজিস্ট্রেশন করাতে। সঙ্গীদের মধ্যে একজন বিবাহিত বা অন্য লিভ ইন সম্পর্কে থাকলে তিনিও নতুন লিভ ইন সম্পর্কে জড়ানোর অনুমতি পাবেন না।

লিভ ইন সম্পর্কে সন্তান হলে তাকে বৈধ বলেই স্বীকৃতি দেওয়া হবে। সম্পর্ক থেকে বেরতে চাইলে জবানবন্দি দিতে হবে। মহিলারা এই সম্পর্কের পর ভরণপোষণ চেয়ে আদালতের দ্বারস্থ হতে পারেন। লিভ ইনের সরকারি নথিভুক্ত না করালে সর্বোচ্চ ছমাসের জেল ও ২৫ হাজার টাকা জরিমানা হতে পারে।

বিয়ের ক্ষেত্রেও সরকারি রেজিস্ট্রেশন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে অভিন্ন দেওয়ানি বিধির (Uniform Civil Code) নতুন বিলে। সামাজিক বিয়ের ২ মাসের মধ্যেই সেরে ফেলতে হবে রেজিস্ট্রেশন। তা না হলে গুণতে হবে ২০ হাজার টাকার জরিমানা। তবে রেজিস্ট্রেশন না হলেও বৈধতা থাকবে বিয়ের। বিবাহিত অবস্থায় দ্বিতীয় বার বিয়ে করতে পারবেন না কেউ। বিয়ের ক্ষেত্রে পুরুষদের ২১ এবং মহিলাদের বয়স ১৮ বছর হতেই হবে।

বিবাহ বিচ্ছেদ নিয়েও বিশেষ ধারা রয়েছে নয়া বিলে। পরকীয়া, অত্যাচার, কোনও কারণ ছাড়াই আলাদা থাকা ইত্যাদি নানা বিষয়ের জেরে পুরুষ ও মহিলা যে কেউ আদালতে বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন করতে পারেন। স্বামীর একাধিক স্ত্রী থাকলে বিবাহ বিচ্ছেদে অগ্রাধিকার পাবেন মহিলারা। ধর্ষণ বা অস্বাভাবিক যৌনতার অপরাধী দোষী সাব্যস্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধেও বিবাহ বিচ্ছেদের মামলায় মহিলারা সুবিধা পাবেন। বিয়ের এক বছর পেরনোর আগে বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন করা যাবে না।