https://bangla-times.com/
ঢাকামঙ্গলবার , ৫ ডিসেম্বর ২০২৩

বাংলাদেশ উপকূলে ১৪ মাসে ৪ ঘূর্ণিঝড়

বাংলা টাইমস্
ডিসেম্বর ৫, ২০২৩ ৯:৫১ পূর্বাহ্ণ । ৬১ জন
Link Copied!

বঙ্গোপসাগরে ১৪ মাসে পাঁচটি ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টি হয়েছে। এরমধ্যে চারটিই আঘাত করেছে বাংলাদেশ উপকূলে। আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, তিন দশকের মধ্যে দেশের আবহাওয়া চলতি বছর অস্বাভাবিক আচরণ করেছে।

ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের ঠিক এক বছর পর ২৫ অক্টোবর রাতে হানা দেয় সাইক্লোন হামুন। চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজার অতিক্রমের সময় তাণ্ডব চালায় সাতকানিয়া, মহেশখালী, কুতুবদিয়ায়।নভেম্বরে উত্তর বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া ঘূর্ণিঝড় মিধিলি আঘাত হানে বাংলাদেশের উত্তর-পূর্ব উপকূলে।

এর আগে মে মাসে ঘূর্ণিঝড় মোখা আঘাত করে টেকনাফ, সেন্টমার্টিনে। বঙ্গোপসাগরে পঞ্চম ঘূর্ণিঝড় মিগজাউম সৃষ্টি হয় ডিসেম্বরে। যা ভারতের বিশাখাপত্তম উপকূলে আঘাত করে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, এ বছর সাগরের তাপমাত্রা ২৮ থেকে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে ওঠে, যা অস্বাভাবিক।

জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ বলেন, গত ১৪ মাসে পাঁচটি সাইক্লোন দেখা গেছে। যা অতীতে কখনোই হয়নি। সাগরে তাপমাত্রা বেড়ে গেছে। তাই ঘূর্ণিঝড়ের প্রবণতা বাড়ছে।

আবহাওয়াবিদরা আরও জানান, এ বছর বর্ষার আগে মার্চে অস্বাভাবিক বৃষ্টি হয়। এপ্রিলে দেখা দেয় মাঝারি থেকে তীব্র তাপদাহ।

রাজশাহীতে তাপমাত্রার পারদ ওঠে ৪২ ডিগ্রিতে। আর ঢাকায় ছিল ৪০.৫ ডিগ্রি। যা ছিল প্রায় পাঁচ যুগের মধ্যে রেকর্ড। তবে বর্ষার মাস জুন-জুলাইয়ে স্বাভাবিকের চেয়ে প্রায় ৫৫ ভাগ বৃষ্টি কম হয়েছে।

আবহাওয়াবিদরা বলছেন, জলবায়ু পরিবর্তন ঋতু বৈচিত্র্যের ওপর সরাসরি প্রভাব ফেলছে।

বজলুর রশিদ আরও বলেন, ‘২০২৩ সালের এ পর্যন্ত দশ মাসই অস্বভাবকি ছিল আবহাওয়া। আমরা দেখেছি মার্চ-এপ্রিলে হট ওয়েভ ছিল। এ বছর শক্তিশালী এল নিনোর প্রভাবে অক্টোবর উষ্ণ ছিল। যা আগামী বছরের মাঝমাঝি পর্যন্ত থাকবে।

‘আবহাওয়া অফিসের পূর্বাভাস মতে, এ বছর ডিসেম্বরে কম শীত অনুভূত হতে পারে। তবে মাসের মাঝামাঝি থেকে দুটি মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।