https://bangla-times.com/
ঢাকাবুধবার , ২৪ এপ্রিল ২০২৪

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে ছেলেকে নিয়ে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিলেন মা

চাঁদপুর প্রতিনিধি
এপ্রিল ২৪, ২০২৪ ৭:৪৬ অপরাহ্ণ । ৩৩ জন
Link Copied!

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জের পৌরসভার মকিমাবাদ এলাকায় পারিবারিক কলহের জেরে ট্রেনে কাটা পড়ে মা ও ছেলে মৃত্যু হয়েছে মৃত্যু হয়েছে। নিহতরা হলো-তাহমিনা আক্তার (২৪) ও তার ১৬ মাসের শিশু আঃ রহমান।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) বেলা আড়াইটার দিকে চাঁদপুর থেকে লাকসাম যাওয়ার পথে হাজীগঞ্জ রেলষ্টেশানের প্রায় এক কিলোমিটার পূর্বে লোকাল ট্রেন সাগরিকা ট্রেনের নীচে কাটা পড়ে এই ঘটনা ঘটে। নিহত তাহমিনা হাজীগঞ্জ উপজেলার ধড্ডা গ্রামের রফিকুল ইসলামের মেয়ে ও একই উপজেলার সন্না হাওলাদার বাড়ির প্রবাসী মাসুদুজ্জামানের স্ত্রী। তাহমিনা মাসুদ দম্পত্তির মুনতাহা (৫) নামের আরও একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

এদিকে ট্রেনে কাটা পড়ে মা ছেলে নিহতের ঘটনায় তাহমিনার বাবার পরিবারের কাছে আত্মীয় স্বজন ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। তারাই অভিযোগ করে উপস্থিত জানান, স্বামীর আদেশে বিয়ের পর থেকে স্বামীর বাড়িতে না থেকে বাবার থাকতো তাহমিনা। এভাবে তাদের দুটি সন্তান জন্ম গ্রহন করে। সম্প্রতি তাহমিনার স্বামী দেশে আসে এরই মধ্যে তাদের সম্পর্ক অবনতি হলে তাহমিনা স্বামীকে ডিভোর্স দেন। হঠাৎ করে কেন সে এমন সিদ্বান্ত নিলো তা ভেবে উঠতে পারছেন না পরিবারের কেউ।

হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আব্দুর রশিদ জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেছে । ঘটনাটি যেহেতু ট্রেনে কাটা। বিষয়টি রেল পুলিশ দেখবে।

চাঁদপুর রেলওয়ে (জিআরপি) থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদু রহমান বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে সুরাতহাল তৈরী করা হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত সাপেক্ষে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

জানা গেছে, তাহমিনা আজকে তার ব্যাক্তিগত ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে আত্মহত্যা করেন। এর আগে তাহমিনা গত ২৮ মার্চ তার স্বামী ও পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে হাজীগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দেন। অভিযোগের পর স্বামী দেশে আসলেও কোন সুরাহা না পাওয়ায় আত্মহত্যা করেছেন বলে স্থানীয়দের ধারণা।

তাদের মতে,পারিবারিক কলহের জের ধরে মা তার শিশু সন্তানকে কোলে নিয়ে চলন্ত ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। ঘটনাটি খুবই মর্মান্তিক।