https://bangla-times.com/
ঢাকাশুক্রবার , ২৪ নভেম্বর ২০২৩
  • অন্যান্য

নৌকা পাচ্ছেন না বিতর্কিত ও বয়স্ক এমপিরা

বাংলা টাইমস্
নভেম্বর ২৪, ২০২৩ ৮:০৫ পূর্বাহ্ণ । ৬৮ জন
Link Copied!

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ২০২৪ সালের ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তফসিল ঘোষণার পর নির্বাচনমুখী রাজনৈতিক দলগুলো মনোনয়ন ফরম বিক্রি করেছে। এখন চলছে প্রার্থী বাছাই। তবে এবারের নির্বাচনে বিতর্কিত ও বয়স্করা আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয় পাচ্ছেন না।

এরই মধ্যে ৩০০ আসনের ৭২টি আসনে দল একক প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৩ নভেম্বর) দলের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠকে জাতীয় সংসদের ১ থেকে ৭২ পর্যন্ত সংসদীয় আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত হয়। এরমধ্যে ১২ জন বর্তমান সংসদ সদস্য বাদ পড়েছেন।দলীয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। আওয়ামী লীগের হয়ে কারা ভোটের মাঠে নামবেন তা জানতে আরও একদিন অপেক্ষা করতে হবে।অর্থাৎশনিবার (২৫ নভেম্বর) জানা যাবে। ওই দিন মনোয়নপ্রাপ্তদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হবে জানিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের নির্বাচনে ৫৬ জন সংসদ সদস্য-মন্ত্রী দলের মনোনয়ন পাননি। এর আগে ২০১৪ সালের নির্বাচনে ৪৯ জন সংসদ সদস্য-মন্ত্রীকে মনোনয়ন দেওয়া হয়নি।

বৃহস্পতিবারের বৈঠক শেষে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, রংপুরের ৩৩ ও রাজশাহীর ৩৯টি মিলিয়ে মোট ৭২টি আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বর্তমান সংসদ সদস্য কয়জন বাদ পড়েছে সেই সংখ্যা এই মুহূর্তে আমি বলতে পারছি না, তবে বেশ কয়েকজন বাদ পড়েছে। প্রার্থী বাছাই ক্ষেত্রে জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্যদেরই প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে।

সূত্রমতে, আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়নের ক্ষেত্রে শক্ত অবস্থান নিয়েছে। দলটি মনে করে, টানা তৃতীয় দফায় ক্ষমতায় থাকায় দলের অনেক সংসদ সদস্যই দলীয় শৃঙ্খলার কথা ভুলে গেছেন। তাদের অনেকেই স্থানীয় পর্যায়ে দাম্ভিকতা দেখান। তাদের ওপর ক্ষিপ্ত দলের হাইকমান্ড। অনেকের আমলনামা দলীয় প্রধানের কাছে এসেছে। দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি, স্থানীয় সরকার নির্বাচনে দলীয় ভিন্নমতাবলম্বীদের পৃষ্ঠপোষকতা, ভোটারদের সঙ্গে যোগাযোগ না রাখা এবং দলীয় নেতাদের উপেক্ষা করে নিজের গ্রুপের পক্ষে অবস্থান নেওয়া তাদের বিতর্কিত হওয়ার মূল কারণ। তাদের এবার দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হবে না। বিতর্কিতদের পরিবর্তে তরুণ, জনপ্রিয় ও নিবেদিতপ্রাণ নেতারা দলীয় টিকিট পাবেন। দলের সেবা করার দীর্ঘ ইতিহাস থাকা সাবেক সংসদ সদস্যরাও মনোনয়ন পাচ্ছেন।

আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের কোন কোন নেতার জয়ের সম্ভাবনা বেশি, তা জানতে একাধিক সংস্থা দলের তৃণমূল ও জনগণের ওপর বেশ কয়েকটি জরিপ চালায়। সেই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রায় ৯০ জন বর্তমান সংসদ সদস্য বিতর্কিতের তালিকায় রয়েছেন। প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, আওয়ামী লীগের অনেক সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে স্থানীয় সরকার নির্বাচন ও দলীয় কমিটিতে নেতা মনোনয়নে স্বজনপ্রীতি ও পক্ষপাতিত্ব, টেন্ডারবাজি, টাকার বিনিময়ে মানুষকে চাকরি দেওয়া এবং দলের অভ্যন্তরীণ কোন্দল উসেক দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে।

বুধবার (১৫ নভেম্বর) প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন। ভোটগ্রহণ হবে ২০২৪ সালের ৭ জানুয়ারি। মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ৩০ নভেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাই ১ থেকে ৪ ডিসেম্বর। রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল দায়ের ৬ থেকে ১৫ ডিসেম্বর। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ১৭ ডিসেম্বর আর প্রতীক বরাদ্দ ১৮ ডিসেম্বর। প্রচারণা শুরু হবে ১৮ ডিসেম্বর থেকে ৫ জানুয়ারি সকাল ৮টা পর্যন্ত।