https://bangla-times.com/
ঢাকাশনিবার , ২৭ জানুয়ারি ২০২৪
  • অন্যান্য

দক্ষিণ আফ্রিকায় গুলিতে বাংলাদেশির মৃত্যু

ফেনী প্রতিনিধি
জানুয়ারি ২৭, ২০২৪ ৫:১১ অপরাহ্ণ । ৭৫ জন
Link Copied!

দক্ষিণ আফ্রিকায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে এক প্রবাসী ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন।নিহতের নাম-নুরুল হুদা লিটন (৩৬)। জোহানেসবার্গের হিলব্রুত এলাকায় শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) রাত ১২টায় এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে দেশটির আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাঁর মরদেহ উদ্ধার করে।

জানা যায়, নুরুল হুদা ওরফে লিটন নামের ওই ব্যবসায়ীর বাড়ি ফেনীর দাগনভূঁঞা উপজেলার জগতপুর গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের এবাদুল হকের ছেলে।

লিটনের চাচাতো ভাই মনির আহম্মদ সবুজ জানান, জোহানেসবার্গের হিলব্রুতে তাঁর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে বাইরে বের হয়ে লিটন সামিট ক্লাবের সামনে পৌঁছালে সন্ত্রাসীরা পেছন দিক থেকে এসে পিঠে গুলি করে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পর লিটনের মৃত্যু হয়। হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার জানান অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তাঁর মৃত্যু হয়েছে।

দাগনভূঁঞা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসিম বলেন, ‘নিহত ব্যক্তি মধ্যম জগতপুর গ্রামের এবাদুল হকের ছেলে। তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গের হিলব্রুত এলাকায় ১৫ বছর ধরে ব্যবসা করতেন। বাংলাদেশ সময় রাত ১২টায় আফ্রিকাতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হওয়ার খবর পেয়েছি।’

জানা গেছে, লিটন জীবিকার তাগিতে ২০১০ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় পাড়ি জমান। সেখানে নিজে দুটি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। তিনি এবং তাঁর ছোট ভাই মিঠুসহ দুটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসছেন। সাত মাস আগে সবশেষ দেশে এসেছিল। আগামী ফেব্রুয়ারি মাসের ১৫ তারিখে তাঁর বাড়ি এসে বিয়ে করার কথা ছিল। কিন্তু তা আর হলো না।

দাগনভূঁঞা সদর ইউপি চেয়ারম্যান বেলায়েত হোসেন স্বপন বলেন, ‘লিটনের মৃত্যুর খবরে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তাঁর মরদেহ দেশে আনতে সরকার সংশ্লিষ্টদের কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে অনুরোধ করছি।’

ফেনী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের সাবেক গাড়িচালক এবাদুল হকের তিন ছেলে তিন মেয়ের মধ্যে লিটন ছিলেন সবার বড়। মেজ ভাই সৌদি আরবে এবং ছোট ভাই মিঠু দক্ষিণ আফ্রিকায় তাঁর সঙ্গে ছিলেন।