https://bangla-times.com/
ঢাকাবুধবার , ৬ ডিসেম্বর ২০২৩

জন্ম নিবন্ধন কার্যক্রম বন্ধ, বিপাকে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা

শাহ জালাল, বরিশাল
ডিসেম্বর ৬, ২০২৩ ১২:৩২ পূর্বাহ্ণ । ১৫২ জন
Link Copied!

এক মাসেরও বেশী সময় ধারে বরিশাল মহানগরীতে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন কার্যক্রম সচল না থাকায় নগরবাসীকে চরম ভোগান্তি ভোগ করতে হচ্ছে। বিশেষ করে প্রাথমিকে ভর্তিচ্ছুদের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশী সমস্যা দেখা দিয়েছে। আসন্ন নতুন বছরে নগরীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে তৃতীয় শ্রেণীতে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি কার্যক্রম ইতোমধ্যে শুরু হলেও শিশু শিক্ষার্থীদের জন্ম নিবন্ধনের অভাবে ভর্তি নিয়ে মারাত্মক জটিলতা দেখা দিয়েছে।

সরকারী নিয়মানুযায়ী শিক্ষার্থীদের স্কুলে ভর্তিতে জন্ম নিবন্ধন বাধ্যতামূলক হলেও নগর ভবনের দায়িত্বশীলদের যথাযথ পদক্ষেপের অভাবে নগরীতে সিটি কর্পোরেশনের সেই কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

গত ১২ জুন সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনের পর নগরীর ৮ ও ২২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শপথ নেবার আগেই মৃত্যুবরন করায় ঐ দুটি ওয়ার্ডের জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন কার্যক্রমে বন্ধাত্ব আরো বেশী। এমনকি পুরো নগরীতে জন্ম নিবন্ধনের সংশোধনী পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে। ফলে নগরীর বিপুল সংখ্যক মানুষ প্রতিনিয়ত নানামুখি সমস্যায় পড়ছেন। জন্ম নিবন্ধনের অভাবে অনেকের জাতীয় পরিচয়পত্রের ত্রæটি সংশোধনী সহ ভিসা আবেদন পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে।

গত ১৪ নভেম্বর বরিশাল সিটি করপোরেশনের নগর পরিষদ দায়িত্ব গ্রহনের দিন পনের পরে নতুন কাউন্সিলর ও পুনঃ নির্বাচিত কাউন্সিলররা স্থানীয় সরকার শাখা থেকে তাদের পাস ওয়ার্ড সংগ্রহ করলেও ওয়ার্ড সচিবগণ এখনো তা গ্রহন না করায় নগরীর জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনের কার্যক্রম চালু হয়নি।

নিয়ম অনুযায়ী সিটি করপোরেশনের ৩০টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও ১০ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলরদের অফিস সচিবগণ স্থানীয় সরকার শাখা থেকে এসব পাসওয়ার্ড সংগ্রহ করার কথা।

কিন্তু প্রায় কোন ওয়ার্ড সচিবই গত ১৫ দিনেরও বেশী সময়েও তা সংগ্রহ করেন নি। বিষয়টি নিয়ে নগর ভবনের প্রশাসনিক শাখা থেকে বার বার তাগিদ দেয়া হয়েছে বলে জানান হয়েছে। অপরদিকে ৮নম্বর ও ২২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলরের মৃত্যুতে বিধি অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট নারী কাউন্সিলরকে দায়িত্ব দেবার কথা থাকলেও সদ্য বিদায়ী মেয়র সেই দায়িত্ব পার্শ্ববর্তি দুটি ওয়ার্ডের দুজন কাউন্সিলরকে দিয়ে যান। অবশ্য বর্তমান মেয়র দায়িত্ব গ্রহনের পর নিয়ম অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট নারী কাউন্সিলরদের ওই দুটি ওয়ার্ডের দায়িত্ব প্রদান করেছেন।

অপরদিকে, এসব নারী কাউন্সিলর সহ নগরীর প্রায় সব কাউন্সিলর ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসনের স্থানীয় সরকার শাখা থেকে তাদের পাসওয়ার্ড সংগ্রহ করলেও ওয়ার্ড সচিবগণ তা না পাওয়ায় এ নগরীতে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন কার্যক্রম সচল হয়নি। বিষয়টি নিয়ে একাধিক নগরবাসী নব নির্বাচিত মেয়রের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

বরিশাল সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও সচিব মাসুমা আক্তার জানান, অবিলম্বে পাসওয়ার্ড সংগ্রহ করে প্রতিটি ওয়ার্ডে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন কার্যক্রম চালুর নির্দেশনা অনেক আগেই দেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে সব কাউন্সিলরগণের পাসওয়ার্ড দেয়া হয়েছে। ওয়ার্ড সচিবগণ কেন এখনো পাসওয়ার্ড গ্রহন করেননি তা খতিয়ে দেখে জরুরী ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য বলা হয়েছে বলে জানান তিনি। চলতি সপ্তাহের মধ্যে যাতে এ কার্যক্রম শুরু করা যায় সে লক্ষ্যে নির্দেশনা প্রদানের কথাও জানান তিনি।