https://bangla-times.com/
ঢাকাসোমবার , ১৩ মে ২০২৪

চূড়ান্ত রায়ের আগে আসামিকে কনডেম সেলে রাখা যাবে না: হাইকোর্টের রায়

নিজস্ব প্রতিবেদক
মে ১৩, ২০২৪ ৫:৫৪ অপরাহ্ণ । ১৮ জন
Link Copied!

চূড়ান্ত রায়ের আগে কোনো আসামিকে কনডেম সেলে রাখা যাবে না। এই রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট। সোমবার (১৩ মে) এক রিটের প্রেক্ষিতে এই রায় দেন বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি মো. বজলুর রহমান।

এ সময় আদালত জানান, বিশেষ কোন ব্যক্তিকে বিশেষ কারণে কনডেম সেলে রাখা যাবে, সেক্ষেত্রে কারাগারে আসামিকে শুনানি করতে হবে। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের অধিকার আছে জামিন আবেদনের, হাইকোর্টের উচিত শুনানির জন্য তা গ্রহণ করা।

আদালত নির্দেশ দেন, কনডেম সেলে থাকা আসামিদের স্বাভাবিক কারাগারে স্থানান্তর করার। এজন্য জেল কর্তৃপক্ষকে দুই বছর সময় দেওয়া হয়েছে। এছাড়া হাইকোর্ট জেল কোডের ৯৮০ বিধি অসাংবিধানিক বলেও ঘোষণা দিয়েছেন।

বিষয়টি নিয়ে রিটকারী আইনজীবী শিশির মনির বলেন, মৃত্যুদণ্ডের সাজা চূড়ান্ত হওয়ার আগে কাউকে কনডেম সেল রাখা যাবে না। চূড়ান্ত নিষ্পত্তি বলতে, হাইকোর্ট বিভাগ, আপিল বিভাগ, আপিল, আপিলের রিভিউ এবং রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনার আবেদনের যে সুযোগ আছে সেগুলো শেষ হওয়া। এর আগে কাউকে কনসেল সেলে রাখা যাবে না। ট্রায়াল আদালতে রায়ের পরই কাউকে নির্জন কক্ষে রাখা যাবে না।

তিনি বলেন, আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে একটি মামলার চূড়ান্ত নিষ্পত্তি হতে দীর্ঘ সময় লেগে যায়। সেজন্য আদালত বলেছেন, ট্রায়াল স্টেজে কারো ফাঁসির রায়ের পর কনডেম সেলে নেয়া আসামিকে ডাবল সাজা দেয়ার শামিল। কেননা, আদালত তাকে ‍মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন, নির্জন কক্ষে বছরের পর বছর আটকে রাখার সাজা দেননি।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রাম কারাগারে কনডেম সেলে থাকা জিল্লুর রহমানসহ মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত তিন বন্দির পক্ষে একটি রিট দায়ের করেছিলেন আইনজীবী শিশির মনির। পরে গতবছরের ১২ ডিসেম্বর মৃত্যুদণ্ডাদেশ চূড়ান্ত হওয়ার আগে আসামিদের কনডেম সেলে বন্দি রাখা কেন বেআইনি হবে না এবং কেন জেলকোডের ৯৮০ বিধি অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হবে না, এই মর্মে রুল জারি করেন আদালত। সোমবার জারি করা ওই রুলের শুনানি শেষ হয়।