https://bangla-times.com/
ঢাকাশুক্রবার , ১ ডিসেম্বর ২০২৩

‘গণমাধ্যমে আমার কথা বেশি লেখে বলেই শোকজ’

ফরিদপুর প্রতিনিধি
ডিসেম্বর ১, ২০২৩ ১১:১৩ পূর্বাহ্ণ । ১৭০ জন
Link Copied!

নির্বাচনি আচরণবিধি লঙ্ঘন করায় অভিযোগের লিখিত ব্যাখ্যা দিতে ফরিদপুর-৪ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক এমপি মজিবর রহমান চৌধুরী নিক্সন আদালতে হাজির হয়েছেন।

শুক্রবার (১ ডিসেম্বর) বিকাল ৩ টায় ফরিদপুর আদালতে স্বশরীরে হাজির হন নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটি চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে। এসময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন, ফরিদপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহদাত হোসেন ও তার আইনজীবী ।

এর আগে বৃহস্পতিবার ফরিদপুর ৪-এর নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যানের অস্থায়ী কার্যালয়ে স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে তাকে লিখিত ব্যাখ্যা প্রদানের জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এর প্রেক্ষিতেই তিনি নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটির ফরিদপুর ৪-এর চেয়ারম্যান এবং যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ (২য় আদালত) মোহাম্মদ মঈন উদ্দীন চৌধুরীর কাযালয়ে আসেন।

আদালত থেকে বেরিয়ে সাবেক এই এমপি ( মুজিবুর রহমান নিক্সন চৌধুরী) সাংবাদিকদের বলেন, আমরা জনপ্রতিনিধি, মনোনয়পত্র জমার দিন আমি কাউকে দাওয়াত দেইনি। কোথা থেকে এতো লোক এসেছে সেটি আমার পক্ষে জানাও সম্ভব নয়। রিটারিং কর্মকতার রুমে আমি পাচজনের বেশি কাউকে প্রবেশ করতে দেইনি। আমার মতো জেলা সকল গুরুত্বপূর্ন প্রার্থীরই সমর্থকরা এসেছেন তার নেতার মনোনয় জমা দেওয়া দেখতে।

তিনি শোকজের বিষয়ে বলেন, আমি নিবাচন আচারণ বিধি মেনেই নির্বাচনে কাজ করবো। দেশের সব জায়গায়ই বিপুল সংখ্যাক লোক সমাগম হয়েছে, কিন্তু শোকজ দেওয়া হলো আমিসহ কয়েকজনকে ।

এতে ভালো হয়েছে অন্যসকল প্রার্থী সাবধান হবে। পরবর্তীতে আমি সহ সকলেই নিবাচন আচারণ বিধি মেয়ে চলবে ।

তিনি আরো বলেন, সরকার যেহেতু সুষ্টু নিবাচন চাইছে, আমরাও আমাদের কর্মী সমর্থকদের সেভাবে চলার নির্দেশনা দিবো। দেশের গণমাধ্যমগুলো আমার আর সাকিবের কথা বেশি লিখেছে বলেই শোকজটি দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, মনোনয়ন পত্র জমাদান উপলক্ষে নিক্সন চৌধুরীর বিরুদ্ধে আড়াই শতাধিক মাইক্রোবাস ও দুই শতাধিক মোটরসাইকেলের বহর নিয়ে ছাদখোলা গাড়িতে দাড়িয়ে শোভাযাত্রা করার অভিযোগ উঠে। এতে এ সময় ওই এলাকায় সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। জনদুর্ভোগ সৃষ্টি হয়।

এতে সংসদীয় নির্বাচনে রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণবিধিমালা, ২০০৮-এর বিধি ৮(ক) ৩৮ (খ)-এর বিধান এবং তৎসহ বিধি ১২-এর বিধান লঙ্ঘন করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে ওই আদেশে।