https://bangla-times.com/
ঢাকাবুধবার , ৬ ডিসেম্বর ২০২৩
  • অন্যান্য

‘কাঁচপুরের বাস টার্মিনাল কাজ শেষ হবে আগামী বছরের মধ্যভাগে’

নিজস্ব প্রতিবেদক
ডিসেম্বর ৬, ২০২৩ ৪:২১ অপরাহ্ণ । ৬৫ জন
Link Copied!

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন, কাঁচপুরে ঢাকা নগর আন্তঃজেলা বাস টার্মিনালের নির্মাণ কাজ আগামী বছরের মধ্যভাগে শেষ হবে।

তিনি বলেছেন, এরই মধ্যে মাটি ভরাটসহ প্রকল্পটির ৫০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। বাকি কাজগুলো নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই শেষ হবে। পর্যায়ক্রমে টার্মিনালের চারপাশে সীমানা প্রাচীর ও বাস পার্কিংয়ের ডিপোসহ অন্যান্য অবকাঠামোর নির্মাণকাজ করা হবে। টার্মিনালটি চালু হলে এখান থেকেই চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের ১৬ জেলার বাস নির্বিঘ্নে চলাচল করবে। ফলে রাজধানীর যানজট নিরসনসহ যাত্রী সেবার মানোন্নতও হবে। যানজটের ভোগান্তি থেকে রেহাই পাবেন ঢাকা ও আশপাশের এলাকার বাসিন্দারা। সায়েদাবাদ হয়ে উঠবে আন্তঃনগর বাস টার্মিনাল।

বুধবার (৬ নভেম্বর) বেলা ১১টায় সোনারগাঁয়ের কাঁচপুরে ঢাকা নগর আন্তঃজেলা বাস টার্মিনালের কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন

।কাজের অগ্রগতির বিষয়ে মেয়র তাপস বলেন, আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল নির্মাণের জন্য আমরা চারটি স্থান নির্ধারণ করেছি। এরই মধ্যে কাঁচপুরে একটি টার্মিনালের কাজ শুরু হয়েছে। আমি খুব আনন্দিত আমরা যেভাবে আশা করেছিলাম ওইভাবেই কাজ দ্রæতগতিতে এগিয়ে চলছে। এরই মধ্যে বালু ভরাটের কাজ শেষ হয়েছে। বাকি কাজ নির্ধারিত সময়েই শেষ হবে। পাশাপাশি আমরা সীমানা প্রাচীরের কাজ শুরু করবো এবং কিছু অবকাঠামোর নির্মাণ কাজ করতে হবে। এর আগে আমরা পরিবহন মালিকদের সঙ্গে বসবো কি ধরণের অবকাঠামো নির্মাণ করলে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করতে সহজ হবে। পুরো কাজটাই আমরা নিজস্ব অর্থায়েনে চালিয়ে যাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে যে বাস টার্মিনালগুলো আছে সেগুলো আশির দশকে পরিকল্পনা করা হয়েছিল। তখন শুধুমাত্র টার্মিনাল হিসেবে করা হয়েছিল। এরপর এখানে আন্তঃজেলা এবং সিটি বাস একসঙ্গে রাখা হয়েছিল। সেটা এখন কার্যকর না। এজন্য আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি আন্তঃজেলা বাস টার্মিনালগুলোকে ঢাকার বাইরে রাখার। আর ঢাকার মধ্যে যে টার্মিনালগুলো আছে সেখানে শুধু নগর বাসগুলো থাকবে। এভাবে আলাদা করে দেওয়ার ফলে ঢাকা শহরের যানজট অনেকটাই সহনশীল পর্যায়ে চলে আসবে