https://bangla-times.com/
ঢাকামঙ্গলবার , ১৬ এপ্রিল ২০২৪

ইতনায় বাবা বুড়ো ঠাকুরের ধর্মীয় অনুষ্ঠান উদ্বোধন

এস এম শরিফুল ইসলাম , নড়াইল
এপ্রিল ১৬, ২০২৪ ৬:০৯ অপরাহ্ণ । ২০ জন
Link Copied!

নড়াইলের লোহাগড়ার ইতনায় শ্রী শ্রী বাবা বুড়ো ঠাকুরের ১৯তম ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও বৈশাখী উৎসবের উদ্বোধন করেন লোহাগড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সস্পাদক ও ইতনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ সিহানুক রহমান।

২০০শ’ বছরের বাবা বুড়ো ঠাকুরের হীজল গাছ তলার ধামে মানব কল্যানে চার দিন ব্যাপী পুজা, ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও কবি গান অনুষ্ঠিত হবে।

মঙ্গলবার (১৬এপ্রিল) দুপুরে ইতনা ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামে বুড়ো ঠাকুরের গাছতলা ধামের নির্বাহী কমিটির সভাপতি অলোক কুমার সাহার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন,কাশিয়ানী ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান খান মশিয়ার রহমান, বুড়ো ঠাকুরের মেলা উদযাপন কমিটির আহবায়ক অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক নারায়ন চন্দ্র বিশ্বাস,সহ সভাপতি বিজন কুমার সেন, নির্বাহী কমিটির সাধারন সম্পাদক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এবং ইতনা স্কুল ও কলেজের সভাপতি উজ্জল গাঙ্গুলী,যুগ্ম সাধারন সম্পাদক প্রবীর কুমার সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রকাশ কুমার বিশ্বাস,প্রচার সম্পাদক তপন সাহা,সদস্য ইতনা স্কুল ও কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অনিন্দ সরকার, ইউপি সদস্য তমাল কুমার কুন্ডু প্রমুখ।

উল্লেখ্য, প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও বৈশাখের ১ম সপ্তাহে ৪ দিন ব্যাপী এ মেলা শুরু হয়েছে। সকাল থেকে বিভিন্ন জেলার হাজার হাজার দর্শনার্থী ও ভক্তবৃন্দের সমাগম ঘটতে থাকে। ভক্তবৃন্দরা তাদের জমির প্রথম ফসল ও ফল এনে বুড়ো ঠাকুরের আস্থানায় দান করেন। জানা গেছে প্রায় ২শ বছর আগে রানী রাশমনির আমলে এই সনাতন ধর্মাবলম্বী ধর্মীয় সাধকের আর্বিভাব ঘটে দৌলতপুর ও ইতনার মাঝে তেপান্তরের নির্জন মাঠের পাশে হিজল তলায়। সেই থেকে এই ধর্মীয় সাধকের অনেক ভক্ত এমনকি রানি রাশমনিও তার ভক্ত হন। তখন থেকেই বয়ে আসছে এই ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও মেলা। মেলায় আগত ভক্তবৃুন্দ জানান, বুড়ো ঠাকুরের মেলায় আমরা প্রতি বছর আসি। এখানে আসলে আমাদের মনোবাসনা পূর্ন হয়। এই পুজায় ও মেলায় সকল ধর্মের দর্শনার্থী আসে। এখানে সনাতন ধর্মের কীর্তন ও কবি গান হয়। ভক্তরা পুজার জন্য প্রসাদ দান করেন।