https://bangla-times.com/
ঢাকামঙ্গলবার , ৫ ডিসেম্বর ২০২৩

আখাউড়া মুক্ত হয় ৬ ডিসেম্বর

নিজস্ব প্রতিবেদক,ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ডিসেম্বর ৫, ২০২৩ ১১:৫১ অপরাহ্ণ । ৪৮ জন
Link Copied!

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া মুক্ত দিবস ৬ ডিসেম্বর। ১৯৭১ সালের এই দিনে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর কবল থেকে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের মধ্য দিয়ে আখাউড়া মুক্ত হয়।

মঙ্গলবার (৫ডিসেম্বর)সন্ধ্যা ৬টা ১ মিনিটে পৌর শহরের সড়ক বাজার অ্যাডভোকেট সিরাজুল হক মুক্তমঞ্চে প্রদীপ প্রজ্বালন করা হয়েছে। প্রদীপ প্রজ্বালনের সময় এক মিনিট বিদ্যুৎ বন্ধ রাখা হয়।

তা ছাড়া এদিকে দিনটিকে স্মরণ করে রাখতে উপজেলা প্রশাসন, পৌর প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড নানা কর্মসূচি গ্রহণ করে।

কর্মসূচির মধ্যে বুধবার সকাল ৯টার দিকে স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ, ১০টার দিকে উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে আনন্দ র্যালি ও শোভাযাত্রা শুরু হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আখাউড়া পোস্ট অফিসের সামনে পতাকা উত্তোলন করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) অংগ্যজাই মারমা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী চৌধুরী, পৌরসভার মেয়র তাকজিল খলিফা কাজল, বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সৈয়দ জামশেদ, মুক্তিযোদ্ধা মো. বাহার মিয়াসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধারা পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীকে পরজিত করে স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলন করেন পৌর শহরের সড়ক বাজার পোস্ট অফিসের সামনে। আখাউড়া মুক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা মুক্ত হতে শুরু করে।

২৫ মার্চ রাতে পাকিস্তানি বাহিনী ঢাকায় আক্রমণ করলে সেদিন থেকেই সারা বাংলাদেশে পাকবাহিনীর সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ে। স্বাধীনতা যুদ্ধে ভারতের ত্রিপুরা ঘেঁষা আখাউড়া ছিল পূর্বাঞ্চলীয় প্রবেশদার। ৭১ রণাঙ্গনের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ জনপদ ছিল।